জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন সংস্থার সমন্বয়ে খুলনার উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা হবে

সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে কেডিএ চেয়ারম্যান

দ: প্রতিবেদক

খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কেডিএ) চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল মুকিম সরকার (এসডিসি পিএসসি পিইঞ্জ) বলেছেন, ‘খুলনার জনপ্রতিনিধি এবং বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার সাথে সমন্বয় করে খুলনার উন্নয়ন ত্বরান্বিত করা হবে। তিনি বিশেষভাবে উল্লেখ করেন বৃহত্তর খুলনা অঞ্চল মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্নেহধন্য এবং স্মৃতি বহুল একটি জায়গা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী খুলনার উন্নয়নে উদার হস্ত এবং একজন শুভাকাঙ্খী’

গতকাল রবিবার দুপুর ১টায় কেডিএ’র কার্যক্রম এবং চলমান উন্নয়ন প্রকল্প বিষয়ে খুলনার সাংবাদিকদের মতিবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘কেডিএ ময়ূরী আবাসিক এলাকার খেলাপী বরাদ্দগ্রহীতাদের আরোপিত সার্ভিস চার্জ বাবদ ৩% এবং জরিমানা  বাবদ ২% অর্থাৎ ৫% অর্থ মওকুফ করা হয়েছে। এছাড়াও ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইইবি) বরাদ্দকৃত জমির বরাদ্দের অর্থ পরিশোধ করা সংক্রান্ত বিষয়টি দীর্ঘ ১০ বৎসর যাবৎ ঝুলে ছিল। বকেয়া অর্থের জরিমানা মওকুফ করে জটিলতা নিরসন করা হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন জটিলতা নিরসন করে কার্যক্রম চালিয়ে যেতে চাই।’

এসময় তিনি খুলনার উন্নয়নে মিডিয়া ব্যক্তিবর্গসহ অন্যান্য সংস্থার জনপ্রতিনিধিদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ খুলনার উন্নয়নে কেডিএর ভূমিকা অনন্য এবং ভবিষ্যতে কেডিএ এই ভূমিকা পালন করবেন মর্মে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক আজকের তথ্য’র সম্পাদক এস এম নজরুল ইসলাম, খুলনা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও সমকালের খুলনা ব্যুরো প্রধান মামুন রেজা, দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন সম্পাদক এস এম সাহিদ হোসেন, দৈনিক সময়ের খবর সম্পাদক তরিকুল ইসলাম, দৈনিক তথ্য সম্পাদক হাবিবুর রহমান, দৈনিক দেশ সংযোগ সম্পাদক মাহাবুব আলম সোহাগ, বিটিভির জলা সংবাদ প্রতিনিধি মকবুল হোসেন মিন্টু, ৭১ টেলিভিশন’র খুলনা ব্যুরো প্রধান রকিব উদ্দিন পান্নু, দৈনিক জন্মভূমির মোঃ আনিস উদ্দিন, দৈনিক প্রবাহের মাকসুদ আলী, দৈনিক পূর্বাঞ্চলের হাসান হিমালয়, কেডিএর সচিব লষ্কর তাজুল ইসলাম, প্রধান প্রকৌশলী কাজী সাবিরুল আলম, তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী শামীম জেহাদ, সিনিয়র বৈষয়িক কর্মকর্তা মাসুদুর রহমান, অথরাইজড অফিসার মুজিবর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আরমান হোসেন ও মোরতোজা আল মামুন, প্রকৌশলী মুনতাসির মামুন।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.