ছেলের সামনেই সরফরাজকে বর্ণবাদী গালি, সমালোচনার ঝড়

 

ক্রীড়া ডেস্ক

বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হারের ধারা ভাঙতে না পারায় পাকিস্তান দলের অধিনায়ক সরফরাজ আহমদকে নিয়ে কম সমালোচনা হয়নি। দেশটির গণমাধ্যম থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে চলছে তার ব্যর্থতার নাড়ি-নক্ষত্র বিচার। তাই বলে, শিশুপুত্রের সামনেই যা-তা বলে গালাগাল কি বড্ড বাড়াবাড়ি নয়?

স¤প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, ছেলেকে কোলে নিয়ে একটি শপিংমলে হাঁটছেন সরফরাজ। এসময় এক ‘ভক্ত’ তার সঙ্গে সেলফি তোলার আবদার করেন। কিন্তু, শিশু কোলে থাকায় তাতে মানা করেন পাকিস্তানি অধিনায়ক।

ভিডিওতে দেখা যায়, সরফরাজ চলে যাওয়ার সময় ওই ব্যক্তি তাকে ডেকে ডেকে বলছেন, ‘ভাই, আপনি শূকরের মতো মোটা কেন’। তবে, এর কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি ৩২ বছর বয়সী এ ক্রিকেটার। মাথা ঠাণ্ডা রেখে ছেলেকে নিয়ে চুপচাপ সরে পড়েন তিনি।

কারও শারীরিক গঠন নিয়ে সমালোচনা অর্থাৎ ‘বডি শেমিং’কে সাধারণত বর্ণবাদী আচরণ হিসেবে দেখা হয়। তাই, সরফরাজের ক্রিকেটজ্ঞান নিয়ে সমালোচনা হলেও, শারীরিক গঠন নিয়ে পরিবারের সামনে অপমান করাকে লজ্জাজনক ও অগ্রহণযোগ্য বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। পাশাপাশি, ভদ্র আচরণ করায় অন্তত এ ব্যাপারে ভক্তদের পাশে পাচ্ছেন পাকিস্তানি অধিনায়ক।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একজন লিখেছেন, তারা পেশাদার। ভাবুন তো, ৯টা-৫টার মধ্যে কোনো ভুল করায় যদি জনসম্মুখে আপনাকে এভাবে হয়রানি করা হয়? বিরক্তিকর ব্যাপার।

আরেক সমর্থক শঙ্কা প্রকাশ করেছেন, যদি সরফরাজও একই ধরনের ব্যবহার করতেন, তাহলে? তিনি লিখেছেন, কোনোদিন কোনো ক্রীড়াবিদ ধৈর্য হারাবেন, আর পুরো দুনিয়া এ নিয়ে তাণ্ডব শুরু করবে। এ ধরনের ঘটনাই (ভদ্র ব্যবহার) ভক্তদের থেকে ক্রীড়াবিদদের আলাদা করে।

সপ্তাহখানেক ধরে পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ককে যথেষ্ট সমালোচনা সহ্য করতে হচ্ছে। তিনিসহ গোটা দলের ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ভারতের সঙ্গে ম্যাচের আগে ক্রিকেটাররা পিজ্জা-বার্গার খাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সমর্থকরা। এমনকি, ওইদিন ম্যাচ চলাকালে মাঠের মধ্যে হাই তোলা নিয়েও প্রচুর ট্রল হচ্ছে সরফরাজকে নিয়ে।

ভাইরাল হওয়া আরেকটি ভিডিওতে, ওল্ট ট্রাফোর্ড স্টেডিয়ামে ‘মোটা সরফরাজ’ বলে চিৎকার করতে শোনা গেছে একদল দর্শককে। পাকিস্তান অধিনায়কের কঠোর সমালোচনা করেছেন সাবেক ফাস্ট বোলার শোয়েব আখতারও। ইউটিউবে এক ভিডিওতে তিনি শুধু সরফরাজের স্বাস্থ্য নিয়েই নয়, তাকে রীতিমতো ‘মগজবিহীন’ বলে মন্তব্য করেছেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.