চিকিৎসক আকাশের মৃত্যু: মিতুর জামিন না মঞ্জুর

 

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

স্ত্রীর পরকীয়ার কারণে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করা চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর জামিন না মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল রবিবার মহানগর দায়রা জজ আকবর হোসেন মৃধার আদালত মিতুর জামিন না মঞ্জুর করেন।

মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট মো. ফখরুদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর জামিন চেয়ে আবেদন করেছিলেন তার আইনজীবীরা। রাষ্ট্রপক্ষ এতে বিরোধিতা করে। পরে শুনানি শেষে আদালত তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর জামিন না মঞ্জুর করেন।’

গত ৩১ জানুয়ারি ভোরে চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বাসায় ইনজেকশন পুশ করে আত্মহত্যা করেন ডা. মোস্তফা মোরশেদ আকাশ। আত্মহত্যার আগে নিজের ফেসবুক ওয়ালে স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর পরকিয়ার বিভিন্ন ছবি পোস্ট করেন।

৩১ জানুয়ারি রাতে নগরের নন্দনকানন এলাকায় তানজিলা হক চৌধুরী মিতুকে তার খালাতো ভাইয়ের বাসা থেকে গ্রেফতার করে সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এর পর থেকে কারাগারে রয়েছেন মিতু।

এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচতার অভিযোগে ১ ফেব্র“য়ারি বিকেলে তানজিলা হক চৌধুরী মিতুসহ ছয়জনকে এজাহারনামীয় আসামি ও ৩/৪ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে চান্দগাঁও থানায় দণ্ডবিধির ৩০৬ ধারায় মামলা দায়ের করেন ডা. মোস্তফা মোরশেদ আকাশের মা জোবেদা খানম।

মামলায় আসামিরা হলেন-তানজিলা হক চৌধুরী মিতু (২৯), তার মা শামীম শেলী (৪৯), বাবা আনিসুল হক চৌধুরী (৫৫), বোন সানজিলা হক চৌধুরী আলিশা (২১), তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর দুই ছেলে বন্ধু উত্তম প্যাটেল ও ডা. মাহবুবুল আলম (২৮)। এছাড়া ৩/৪ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। গত ৪ ফেব্র“য়ারি তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.