চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে বিমান হাইজ্যাক এর চেষ্টা

বিমানের বিজি-১৪৭ ফ্লাইটটি রোববার ঢাকা থেকে রওনা হয়ে সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে নামার পর এটি ঘিরে ফেলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

পুলিশের বিশেষ শাখার ডিআইজি আকমল হোসেন  বলেন, “ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়ার পর একজন যাত্রী ককপিটে ঢুকে পাইলটকে পিস্তল ধরে বলে, আমাকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলিয়ে দিতে হবে। পাইলট ঠাণ্ডা মাথায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে চট্রগ্রামে অবতরণ করান।”

তিনি বলেন, “যতটুকু জানা গেছে সাগর নামে একজন ক্রু ছাড়া আর কেউ নেই বিমানে।”

ওই উড়োজাহাজে দেড়শ যাত্রীর সঙ্গে থাকা সংসদ সদস্য মইন উদ্দিন থান বাদল বলেন, “পাইলট আমার সঙ্গে নেমে এসেছিল। সে বলেছে, তাকে পারসু করার চেষ্টা করেছে হাইজ্যাকার, বলছে সে শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে চায়।

“সমস্ত যাত্রীরা সেইফ এবং ওই হাইজ্যাকারকে নামানোর চেষ্টা হচ্ছে,” বলেন তিনি।

ওই ব্যক্তি একাই এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, “যতটুকু জানা গেছে, একজন সন্দেহভাজন পাইলটের মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে ছিল। তবে সব যাত্রী নেমে গেছে। পাইলটও নেমে গেছে।”

তিনি বলেন, “এটা নিশ্চিত যে একজন সন্দেহভাজন বিমনটির ভেতরে এখনও অবস্থান করছে।  প্রকৃত ঘটনা কী, তা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।”

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.