গণশুনানির নামে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ষড়যন্ত্র করছে : আইনমন্ত্রী

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি। এই যে ঘুমানো চক্র (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট) দেখছেন, তারা কিন্তু এখনো ষড়যন্ত্র করছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ষড়যন্ত্র করে হত্যা করা হয়েছিল, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধেও তারা ষড়যন্ত্র করছেন।’ গতকাল শনিবার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে বাংলাদেশ আইনজীবী সহকারী সমিতি আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।
জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে গত ২২ ফেব্র“য়ারি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানির প্রতি ইঙ্গিত করে আইনমন্ত্রী বলেন, জাতীয় নির্বাচনে পরাজিত হয়ে তারা এখন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে ‘অডিটরিয়াম শুনানি’ করছেন। তারা বলছেন, এখানে (গত ৩০ ডিসেম্বর) নাকি নির্বাচন হয়নি। তাদের ওই অনুষ্ঠানে একজনও জনগণ নেই। তারা ঘুমিয়েছেন এখানে বসে। তারপরও উনারা বলছেন, উনারা নাকি এখানে (সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির অডিটরিয়ামে) গণশুনানি করেছেন। জনগণ তো শেখ হাসিনার সাথে, উনাদের সাথে তো নেই। উনাদের সঙ্গে জনগণ নেই বলেই তাদের অডিটরিয়ামে বসে শুনানি করতে হয়, সেক্ষেত্রে শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে গণশুনানি করেছিলেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। আর এখানেই হলো শেখ হাসিনার সঙ্গে তাদের পার্থক্য।
সকলকে সতর্ক থাকার আহŸান জানিয়ে আনিসুল হক বলেন, ‘আপনারা সতর্ক থাকবেন। ষড়যন্ত্র কিন্তু শেষ হয়নি। এই যে ঘুমানো চক্র (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট) দেখছেন, তারা কিন্তু একটি জিনিসই পারেন। আর তা হলো ষড়যন্ত্র করা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ষড়যন্ত্র করে হত্যা করা হয়েছিল। এটাও ঠিক, যারা আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে তারা কিন্তু বঙ্গবন্ধুর পাশে থেকেও তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন। যে দাবি উঠেছে, আমার মনে হয়, সেটিও যৌক্তিক দাবি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নেপথ্যে কারা ছিলেন তাদের চিহ্নিত করার জন্য একটি কমিশন দরকার। আজকে তাদের চেহারা ধীরে ধীরে উন্মোচিত হচ্ছে। আমরা সেই কমিশনও জনগণকে উপহার দেব, যেন ইতিহাস ঠিকভাবে লিখিত হয়। আর বিকৃত ইতিহাস যেন আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে না পড়তে হয়।’ আইনজীবীদের সহকারীদের জন্য পৃথক আইন প্রনয়ণের বিষয়ে সকলকে আশ্বস্ত করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আইনজীবী সহকারী সমিতির সভাপতি মো. মোহাম্মদ নূর মিয়ার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, রেলমন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন, বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, ঢাকা কোর্ট আইনজীবী সহকারী সমিতির সভাপতি মো. আবদুল হান্নান, সাধারণ সম্পাদক মো. খোরশেদ আলম প্রমুখ।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.