খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে বাণিজ্য মেলা বন্ধের দাবি

* মানববন্ধন-স্মারকলিপি

* কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

দ: প্রতিবেদক
খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা বন্ধের দাবিতে ‘সম্মিলিত ক্রীড়া পরিবার’র ব্যানারে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনে খুলনার সব ক্রীড়া সংগঠন, ক্রিকেট, ফুটবল এবং অন্যান্য খেলোয়াড় ও বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামজিক সংগঠনের নেতাকর্মী, সংগঠক ও প্রতিনিধিরা অংশ নেন।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, খুলনার মানুষের একমাত্র খেলার মাঠ খুলনা সার্কিট হাউজ ময়দানে নগরীর বিভিন্ন বয়সের খেলোয়াড়রা ক্রিকেট ও ফুটবল খেলেন। এ মাঠে খেলেই অনেকে দেশের নামকরা খোলোয়াড় হয়েছেন। প্রতি বছর এ মাঠে বাণিজ্য মেলার কারণে ৪-৫ মাস এখানে সব খেলাধুলা বন্ধ থাকে। ফলে এ অঞ্চলের কিশোর-যুবকরা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত হয়ে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে। তাই এ মাঠে আর আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা না করার জন্য সরকার ও প্রশাসনের কাছে বক্তারা জোর দাবি জানান। মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর সম্মিলিত ক্রীড়া পরিবারের আহ্বায়ক এজাজ আহমেদ স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি পেশ করে বাণিজ্য মেলা অন্যত্র আয়োজনের দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।
খুলনা টাউন ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সুজন আহমেদ জানান, ‘খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে প্রতিদিন শত শত উঠতি খেলোয়াড়রা প্রাকটিস করে। এ মাঠে বাণিজ্য মেলা আয়োজন হলে দীর্ঘ সময় খেলাধুলা বন্ধ থাকবে। যেটা ক্রীড়াঙ্গনের কেউই মেনে নেবে না। বরং বাণিজ্য মেলা বিকল্প স্থানে আয়োজন করা যেতে পারে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বাণিজ্য মেলার বিপক্ষে নই। তবে বাণিজ্য মেলাটি খুলনার জোড়াগেট, মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্স, বাস স্ট্যান্ডের পিছনে কিংবা অন্য কোথাও আয়োজন করা যেতে পারে। আজকের মানববন্ধনে দেড় হাজার লোক অংশ নিয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, অবিলম্বে আমাদের দাবি মেনে না নিলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’
প্রসঙ্গত, সার্কিট হাউসে মেলার কারণে ৪/৫ মাস খেলাধুলা বন্ধ রাখতে হয়। এছাড়া মহানগরীর একমাত্র ঈদগাহ ময়দানে এ মেলার আয়োজনে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। ২০১৬ সালে সার্কিট হাউজ মাঠে চেম্বার অব কমার্সের উদ্যোগে বাণিজ্য মেলা বন্ধের জন্য খুলনার সকল খেলোয়াড়, কোচ, সংগঠন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সর্বস্তরের জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে অবস্থান, গণ-স্বাক্ষর কর্মসূচি, মানববন্ধন, জেলা প্রশাসক ও চেম্বারের সভাপতির কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। চূড়ান্ত আন্দোলনের ফসল হিসেবে ২০১৭ সাল থেকে সার্কিট হাউজ মাঠে বাণিজ্য মেলার আয়োজন থেকে বিরত থাকার প্রতিশ্রুতি দেয় চেম্বার অব কমার্স। কিন্তু সেটা ভঙ্গ করে প্রতিবছর মেলার অনুমতি দেওয়ায় সবার মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.