খুলনা-যশোরের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকদের ৯৬ ঘন্টার ধর্মঘট শুরু

 

রাজপথ-রেলপথ অবরোধ, চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা

 

দ: প্রতিবেদক

৯ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের শ্রমিকরা মিল ৯৬ ঘন্টা ধর্মঘটের পাশাপাশি ৪ ঘন্টা রাজপথ-রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে। গতকাল সোমবার ভোর ৬টায় মিলের উৎপাদন বন্ধ করে পাটকলের প্রায় অর্ধলাখ শ্রমিক ৩য় দফায় আন্দোলনের ১ম দিনে এ কর্মসূচিা পালন করে। এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ব পাটকলের শ্রমিকদের ৯ দফার বিষয় নিয়ে গতকাল সন্ধ্যায় (সোমবার) পটকল শ্রমিকলীগ ও সিবিএ নন-সিবিএ নেতাদের সাথে শ্রম অধিদপ্তরের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত রাত ১১টায়ও বৈঠক চলছিলো।

পাটখাতে প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দ, বকেয়া মজুরী -বেতন পরিশ্ধো, মজুরী কমিশন কার্যকর ও প্রতি সপ্তাহর মজুরী প্রতি সপ্তাহে প্রদান সহ ৯দফা দাবীতে গেল ৭ এপ্রিল ১০ দিনের কর্মসূচির ডাক দেয় পাটকল শ্রমিকলীগ। এ কর্মসূচির ৩য় দিনে গতকাল ভোর ৬টায় ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, দৌলতপুর, খালিশপুর, দিঘলিয়া, আলীম, ইর্ষ্টাণ, কার্পেটিং ও জেজেআই জুট মিলের শ্রমিকরা নিজ নিজ কর্মস্থলে না যেয়ে স্ব স্ব মিল গেটে সমবেত হয়। সেখানে শ্রমিকরা পৃথক পৃথক ভাবে মূল ফটকের সামনে ধর্মঘট শুরু করে।

পরে সকাল ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে নতুন রাস্তা মোড়, আটরা আলীম গেট ও নওয়াপাড়া রাজঘাট  এলাকার খুলনা-যশোর মহাসড়ক অবস্থান করে। পাওনার দাবিতে শ্রমিকরা মহাসড়ক ও রেললাইনের উপর বিক্ষোভ করতে থাকে। এ সময় আন্দোলনকারীরা মহাসড়কের সকল যান ও রেললাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে। শ্রমিকরা দুপুর ১২টাা পর্যন্ত রাজপথ রেলপথ অবরোধ কর্মসূচিতে অংশ নেয়।

এর ফলে নতুন রাস্তা, আটরা ও নওয়াপাড়া শিল্প এলাকার প্রায় এক কিলোমিটার সড়ক জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ে যাত্রীরা। এছাড়া ধর্মঘট ও অবরোধের কারণে সোমবার ভোর ৬টা থেকে খুলনা রেল স্টেশন থেকে কোনও ট্রেন ছাড়েনি। ফলে যাত্রীরা স্টশনেই অবস্থান নিয়ে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। খুলনা প্ল্যাটফর্মে যাত্রীরা অবস্থান করেন।

অবরোধ চলাকালে এক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। অবরোধ চলাকালে এক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়। পাটকল শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় নেতা মুরাদ হোসেন, আবু হানিফ ও তরিকুল ইসলাম সহ সিবিএ-নন সিবিএ নেতারা এ সময় বক্তব্য রাখেন।

সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে শ্রমিকদের ৯ দফা বাস্তবায়নের জন্য বিজেএমসি কর্তৃপক্ষের কাছে জোর আহবান জানান। অন্যদিকে শ্রমিক আন্দোলন নিরসনের লক্ষ্যে পটকল শ্রমিকলীগ ও সিবিএ নন-সিবিএ নেতাদের সাথে শ্রম অধিদপ্তরের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় শ্রম অধিদপ্তরের সভা কক্ষে এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এম মিজানুর রহমান।

প্রধান অতিথি ছিলেন  শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজেএমসির চেয়ারম্যান শাহ মোহাম্মদ নাসিম, পাটকল শ্রমিকলীগের সভাপতি সরদার মোতাহার উদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক এস এম কামরুজ্জামান চুন্নু, ক্রিসেন্ট জুট মিল সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহরাব হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক হেমায়েত উদ্দীন আজাদী, প্লাটিনাম মিলের সিবিএ সভাপতি শাহানা সারমিন, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির খান, খালিশপুর জুট মিল সিবিএর সভাপতি আবু দাউদ দ্বীন মোহাম্মদ, সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম শেখসহ খুলনা, ঢাকা ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের পাটকলের সিবিএ নন-সিবিএ নেতারা।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *