May 21, 2024
আঞ্চলিক

খুলনা-কলকাতা বন্ধ বাস সার্ভিস চালুর দাবি

নিসচা খুলনা জেলার উদ্যোগে সড়ক দুর্ঘটনারোধে মানববন্ধন

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা-কলকাতা বন্ধ বাস সার্ভিস চালু, খুলনা-কলকাতা ট্রেন সার্ভিস সপ্তাহের তিন দিন করা ও নগরীতে বন্ধ বিএরটিসির দোতলা বাস চালুর দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ মার্চ) দুপুরে মহানগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা), খুলনা জেলা শাখা এ মানববন্ধন ও সমাবেশের আয়োজন করে। নিসচা’র জেলা সভাপতি মো: হাছিবুর রহমান হাছিবের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নিসচা’র জেলা উপদেষ্টা ও সদর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম।

নিসচা’র জেলা সাধারণ সম্পাদক এসএম ইকবাল হোসেন বিপ্লব এর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা শ্যামল সিংহ রায়, বাগেরহাট জেলা ডেপুটি কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুল জলিল,  বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান বাবু, এনসিআরবির খুলনা জেলার সদস্য সচিব মহাসচিব এম এ কাশেম, মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. ইলিয়াস, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা শেখ মফিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাহফুজুর রহমান মুকুল, খুলনা প্রেসক্লাবের সহ-সাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মুন্না, বৃহত্তর খুলনা উন্নযন আন্দোলনের চেয়ারম্যান শেখ মো. নাসির উদ্দিন,হোসাইন মো: ইউছা ওয়ায়েজ আররাফী নাজু, লবনচরা টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান মোসলেহ উদ্দিন তুহিন, ইউনি ভিশনের নির্বাহী ব্যব¯’াপক হেলাল হোসেন, গতির সহ-সভাপতি আনোয়ারা পারভিন আক্তার পরি,সিনথি খান, নিসচা’র জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক এসএমএ রহিম, দপ্তর সম্পাদক এম মোস্তফা কামাল,এম সাইফুল ইসলাম, ইশরাত আরা হীরা, সদস্য রাকিবউদ্দিন ফারাজী, মাসুদ রানা, নাজমূল সাকিব, ফিরোজ আলী,সাবের খান, মাহমুদা আক্তার লিজা প্রমুখ।

সম্প্রতি খুলনা জেলায় সড়ক দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে। আইনের প্রয়োগ না থাকার কারনে সড়কে নৈরাজ্য বন্ধ হ”েছ না। অবিলম্বে সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সরকারের প্রতি আহবান জানান। সেই সাথে বর্তমানে খুলনা মহানগরীতে ওয়াসা’র দীর্ঘদিনের খুড়াখুড়ির ফলে যে ভোগান্তির শিকার হ”েছ নগরবাসী তা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য সিটি মেয়র এর প্রতি আহবান জানান।

বক্তারা বলেন, দীর্ঘ ৫মাস ধরে বন্ধ খুলনা-কলকাতা রুটের বাস চলাচল। সর্বশেষ খুলনা থেকে সরাসরি কলকাতা সৌহার্দ্যযাত্রা করে ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর। ফলে দুই বাংলার যাত্রীরা আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি ভোগান্তির মধ্যে পড়ছেন।

তারা জানান, ২০১৭ সালের ২২মে গ্রীন লাইন পরিবহনের বাস দিয়ে কমলাপুর বিআরটিসি আন্তর্জাতিক বাস টার্মিনাল থেকে ঢাকা-খুলনা-কলকাতা রুটে যাত্রা শুরু হয়। এদিন কলকাতা থেকে ছেড়ে আসা সৌহার্দ্য শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস যাত্রী নিয়ে খুলনা হয়ে ঢাকায় যায়। এর আগে ৮ এপ্রিল নয়া দিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে খুলনা-কলকাতা রুটে বাস ও ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এছাড়া ২০১৮ সালের ২ ফেব্রæয়ারি ঢাকা-মাওয়া-গোপালগঞ্জ থেকে খুলনা হয়ে কলকাতাগামী শ্যামলী এনআর ট্রাভেলস চলাচল শুরু হয়। এ রুটে পরিবহণটি চালু হওয়ায় যাত্রীরা স্বল্প সময়ে কলকাতার উদ্দেশ্যে যাতায়াত করার সুযোগ পেয়েছিলো। কিš‘ একই বছরের এপ্রিল মাসে বন্ধ হয়ে যায় এই রুটের পরিবহণটিও।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, খুলনা-কলকাতা রুটে বাস চালুর মধ্য দিয়ে খুলনাসহ দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন পূরণ হয়েছিলো। আর এর মাধ্যমে খুলনার যাত্রীদের দিনে দিনে কলকাতা গিয়ে কাজ সেরে আবার সে দিনেই ঘরে ফিরে আসার সুযোগ তৈরি হয়েছিল। নিরাপদ ও স্বা”ছন্দে  রোগী, পর্যটক, ব্যবসায়ী  কলকাতায় পৌঁছে যেতো। এর মাধ্যমে  দুই দেশের বাণিজ্যে আরও বেশি সম্প্রসারণ ঘটছিলো। কিš‘ কোন নির্ধারিত কারণ ছাড়াই ২০১৮ সালের ৪ অক্টোবর এ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় ডব্লিউ.বি.টি.সি এর অধীনে পরিচালনাকারী সৌহার্দ্য শ্যামলী পরিবহন কর্তৃপক্ষ । রোড পারমিটের চুক্তির মেয়াদ থাকতেও দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন করা এ পরিবহন বন্ধ রাখছে বাস মালিক পক্ষ। যা খুলনাবাসীর জন্য দু:খজন্ক। এছাড়া বক্তারা খুলনা-কলকাতা ট্রেন সার্ভিস সপ্তাহের এক দিনের পরিবর্তে তিন দিন করা ও খুলনা মহানগরীতে বন্ধ বিএরটিসির দোতলা বাস চালুর দাবি জানান।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *