খুলনা আ’লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ আব্দুল আজিজ আর নেই

 

* আজ জানাজা ও দাফন, প্রধানমন্ত্রী ও আ’লীগের শোক

 

দ: প্রতিবেদক

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ঘনিষ্ঠ সহচর সাবেক কৃষিমন্ত্রী প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা শেখ আব্দুল আজিজ ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ….. রাজেউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৯০ বছর। তিনি দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ঢাকায় নিজ বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তিনি ্এক ছেলে দুই মেয়ে রেখে গেছেন।

তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মরহুম শেখ আবদুল আজিজকে আজ সকালে ঢাকায় এবং পরে মোড়েলগঞ্জে নিজ গ্রামে জানাজা শেষে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, ভাষা সংগ্রামী শেখ আবদুল আজিজ ১৯২৯ সালের ২৭ ফেব্র“য়ারি বাগেরহাট জেলার মোড়েলগঞ্জ থানার টালিগাতি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। শেখ আজিজ আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। তিনি ছিলেন দলটির সবোর্চ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম প্রেসিডিয়াম সদস্য। বঙ্গবন্ধুর মন্ত্রিসভার একাধারে যোগাযোগ, কৃষি, তথ্য এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে দলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। দীর্ঘদিন সুপ্রিম কোর্টে আইন পেশায় নিয়োজিত ছিলেন তিনি।

স্বাধীনতা ঘোষণা কমিটির আহŸায়ক ছিলেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের প্রবাসী সরকারের ৯ নম্বর সেক্টরের লিয়াজোঁ অফিসার ছিলেন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ ও এলএলবি পাস করেন।  ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর সাড়ে তিন বছর কারাগারে ছিলেন শেখ আবদুল আজিজ। রাজনীতিই তার পেশা ও নেশা। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচারের দাবিতে আন্দোলন করেছেন।

এদিকে সাবেক কৃষিমন্ত্রী শেখ আব্দুল  আজিজের মৃত্যুতে গভীর শোক, শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহ্ উদ্দিন জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান, জেলা আওয়ামী লীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত অধিকারী।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.