June 11, 2024
আঞ্চলিক

খুলনায় শেখ রাসেল দ্বিতীয় আন্তঃবিভাগীয় টেনিস প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

 

তথ্য বিবরণী : খুলনায় শেখ রাসেল দ্বিতীয় আন্তঃবিভাগীয় টেনিস প্রতিযোগিতার-২০১৯ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠান গতকাল রাত আটটায় অফিসার্স ক্লাব টেনিস গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

প্রধান অতিথি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, অন্যান্য খেলাধুলার পাশাপাশি টেনিস খেলাও এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ রাসেল একটি ইতিহাস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু ছাড়া বংলাদেশ কল্পনা করা যায় না। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট ব্যক্তি বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা সম্ভব হলেও তাঁর আদর্শকে হত্যা করা যায়নি। বাংলার মানুষের মুক্তিই ছিল জাতির পিতার জীবনের মূল লক্ষ্য। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে তিনি আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়নে এমন একটি স্তরে নিয়ে গেছেন যা বিশ্বের কাছে রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী খুলনাকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ গ্রহণ করছেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আক্তারুজ্জামান, বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, খুলনাস্থ ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার রাজেশ কুমার রায়না, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ, কেএমপির ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার সরদার রকিবুল ইসলাম এবং পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ। এতে সভাপতিত্ব করেন খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন। স্বাগত জানান কর্মচারী কল্যাণ বোর্ডের উপপরিচালক মুহাঃ বিল্লাল হোসেন খান।  খুলনা জেলা প্রশাসন এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এই টেনিস প্রতিযোগিতায় সারাদেশ থেকে মোট ১৩২টি দল অংশগ্রহণ করছে। গতকাল উদ্বোধনী খেলায় আটটি দল অংশগ্রহণ করবে। খেলাগুলো খুলনা অফিসার্স ক্লাব, খুলনা ক্লাব ও ডিআইজি’র টেনিস গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী খুলনা শিশু হাসপাতাল পরিদর্শন, বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলনকক্ষে খুলনায় প্রস্তাবিত নতুন ভবন নির্মাণ এবং খুলনা এ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কনভেশন সেন্টার নির্মাণ বিষেয় অবহিতকরণ সভায়, রূপসা উপজেলার তিলকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ ‘জমি আছে ঘর নেই’ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত চারটি পাকা ঘরের উদ্বোধন এব উপকারভোগীর মাঝে চাচি হস্তান্তর, বটিয়াঘাটা উপজেলায় শেখ রাসেল ইকোপার্ক পরিদর্শন এবং খুলনা সার্কিট হাউস চত্ত¡রে ৪১ জন পুনর্বাসিত ভিক্ষুকদের মাঝে উপকরণ বিতরণ করেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *