খুলনায় মহাসড়কের পাশে গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিলো সওজ  

দ: প্রতিবেদক  

 

খুলনার পূর্ব রূপসা বাসস্ট্যান্ডসহ খুলনা-মংলা মহাসড়কের দুই পাশে গড়ে ওঠা আড়াই শত অবৈধ স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এসব স্থাপনার মধ্যে রয়েছে পাকা, আধাপাকা ঘর-বাড়ি ও দোকানপাট। গতকাল বুধবার রূপসা বাস স্টেশন থেকে শুরু হওয়া এ উচ্ছেদ অভিযান চলে কুদির বটতলা পর্যন্ত। উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে সড়ক ও জনপথ (সওজ) কর্তৃপক্ষ। গত এক দশকের মধ্যে সরকারি এ দপ্তরটির এটিই সবচেয়ে বড় উচ্ছেদ অভিযান।  

 

সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, যশোর-খুলনা-মংলা ও খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের দুই পাশে সরকারি সম্পত্তি দখল করে প্রভাবশালীরা ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিল দীর্ঘদিন। ১২ জানুয়ারি ঢাকার একটি অনুষ্ঠানে সারাদেশেই এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দেন সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।  

 

ফলে নড়েচড়ে বসেন সওজ খুলনার কর্মকর্তারা। এরপর থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি এবং মাইকিং করে এসব স্থাপনা উচ্ছেদের ঘোষণা দেয়া হয়। কিন্তু দখলদাররা এগুলো অপসারণ না করায় পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী এসব স্থাপনা বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। খুলনার পূর্ব রূপসা বাসস্ট্যান্ড থেকে কুদির বটতলা পর্যন্ত প্রায় পাঁচ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে এ অভিযান চলে।  

 

অভিযানে নেতৃত্ব দেন সওজ খুলনা জোনের এস্টেট ও আইন কর্মকর্তা ও মুখ্য হাকিম সিফাত মেহনাজ (উপ-সচিব) এবং খুলনা জেলা প্রশাসকের নির্বাহী হাকিম ইমরান খান। উপস্থিত ছিলেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী মশিউর রহমান খান, সার্ভেয়ার সাইফুল ইসলাম ও মিজানুর রহমান।  

 

সওজ খুলনার উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুল মোমেন বলেন, মন্ত্রীর নির্দেশের পর আমরা অবৈধ স্থাপনা অপসারণের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেই। সংশ্লিষ্ট এলাকায় কয়েকদিন মাইকিং করি। এরপরও যেসব দখলদার জায়গা খালি করেনি, সেসব জায়গায় অভিযান চালিয়ে অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়। তিনি বলেন, এ অভিযান নিয়মিত চলবে। দখলমুক্ত করা জায়গা আবার দখল করা হলে মামলা করা হবে।  

 

 

 

 

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.