খুলনায় দু’টি মাদক মামলায় ৩ আসামির জেল-জরিমানা

দ: প্রতিবেদক
দৌলতপুর থানার পৃথক দু’টি মাদক মামলার আসামি মো. মিঠু হাওলাদার (৪৮) কে ৮ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ৫ মাস সশ্রম কারাদন্ড এবং মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৯) কে ৮ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৬ মাস সশ্রম কারাদন্ড ও মো. মুরাদ হোসেন (৩০) কে ৫ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ৪ মাস সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. শহীদুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেছেন।
দন্ডপ্রাপ্ত আসামি মো. মিঠু হাওলাদার দৌলতপুর মধ্যডাঙ্গা নুরু পাটোয়ারীর বাড়ির ভাড়াটিয়া মো. আশরাফ আলির ছেলে। তার গ্রামের বাড়ি বাগেরহাট জেলার মোরলগঞ্জ থানার চালিতাবুনিয়া গ্রামে। মো. মাহবুবুর রহমান রনি দৌলতপুর নতুন রাস্তার মোড়ের পানির ট্যাংকির পাশে সমিতির রোডস্থ বাছেদ মঞ্জিলের ভাড়াটিয়া মো. সিরাজুল ইসলামের ছেলে। মো. মুরাদ হোসেন পাবলা তিন রাস্তার মোড়স্থ আজিজ খলিফার বাড়ির শেখ আবুল কাশেমের ছেলে। রায় ঘোষণাকালে দন্ডপ্রাপ্ত আসামি মাহবুবুর রহমান রনি ও মুরাদ হোসেন আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন এবং মিঠু হাওলাদার পলাতক রয়েছেন।
আদালতের স্টোনোগ্রাফার মো. হাদিউজ্জামান হাদি নথি’র বরাত দিয়ে জানান, ২০১৭ সালের ৫ আগস্ট বিকাল সোয়া ৫টার দিকে রেলিগেট এলাকা থেকে ১৫৪ পিস ইয়াবাসহ মিঠু হাওলাদারকে গ্রেফতার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ। অপরদিকে ২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টার দিকে দৌলতপুর দিবা-নৈশ কলেজের সামনে অভিযান পরিচালনা করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এসময় ২০০ পিস ইয়াবাসহ মাহবুবুর রহমান রনি ও মুরাদ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় ওই ৩ জনের বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের হয় যার নং-০৯ ও ৩৫। পরবর্তীতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তারা ওই ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট বিরেন্দ্র নাথ সাহা ও এপিপি অ্যাডভোকেট মো. কামরুল হোসেন জোয়ার্দ্দার।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.