খুলনায় দুই বোনকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, আটক ৩

খুলনায় দুই খালাতো বোনকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। সোমবার (১৬ মে) সকালে বটিয়াঘাটা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহ জালাল ঢাকা পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেছেন, পুলিশ অভিযান চালিয়ে নাঈম নামে একজনকে ও র‌্যাব আরও দুজনকে আটক করেছে। ধর্ষণের শিকার দুইজনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে।

র‌্যাব-৬ এর মিডিয়া সেল সূত্রে জানা যায়, অভিযান চালিয়ে দুজনকে আটক করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে শনিবার রাত আড়াইটার দিকে বটিয়াঘাটা উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের ফুলবাড়ি গ্রামে দুই খালাতো বোন সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়।

১৩ বছরের শিশুর মা জানান, ধর্ষণের ঘটনা শনিবার মধ্যরাতের। তবে রোববার রাতে মেয়ে দুটি ও শিশুটিকে হাসপাতলে ভর্তি করলে বিষয়টি জানাজানি হয়। পুলিশও যায় সে সময়।

তিনি বলেন, ‘শনিবার বিকেলে আমি বোনের বাড়ি ডুমুরিয়ায় গিয়েছিলাম। আমার স্বামী বাগেরহাটে চিকিৎসার জন্য গিয়েছিলেন। এ সময় বাড়িতে ওরা দুই বোন ছিল। মধ্যরাতে সাতজন আমাদের বাড়িতে যায়। তাদের মধ্যে কয়েকজন বাইরে পাহারায় থাকে আর কয়েকজন ঘরে ঢুকে দুই মেয়েকে হাত ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে

তিনি আরও বলেন, ‘ভোররাতে মেয়ে আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানায়। আমরা গিয়ে তাদের মেডিকেলে নিয়ে আসি। ঘটনার সময় বড় মেয়ের সন্তানের গলায় ছুরি ধরা হয়েছিল। পরে তাকে পানিতে ডুবিয়ে রাখে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বড় মেয়ে ছেলে নিয়ে সেখানে গেছে। সেও বেশ অসুস্থ।’

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.