খুলনায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত

 

 

দ: প্রতিবেদক

নানা আয়োজনে খুলনায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত। এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার রাত আটটায় নগরীর শহিদ হাদিস পার্কে ‘ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ সাইফুল ইসলাম এবং সাবেক মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আলমগীর কবির। খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত জানান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জিয়াউর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সরদার মাহবুবার রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু এবং খুলনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাহেব আলী।

দিবসটি উপলক্ষে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভা, রচনা প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। সন্ধ্যায় খুলনা জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে শহিদ হাদিস পার্কে এবং দিনে নগরীতে গুরুত্বপূর্ণ বিদ্যালয়সমূহে বিনামূল্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র প্রদর্শন করে। বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্র দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বিশেষ অনুষ্ঠানমালার প্রচার করছে। ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে সকল উপজেলায়ও অনুরূপ কর্মসূচি পালিত হয়।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : গতকাল বুধবার বিকেল ৪টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবনের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে গঠিত কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. আশিষ কুমার দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় মূখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুজিব নগর সরকার নিয়ে গবেষণাকারী খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান।

তিনি ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবসের তাৎপর্য ও এর আগে ও পরের দীর্ঘ ইতিহাসের ঘটনাবলী সংক্ষেপে তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে এটি একটি ঐতিহাসিক ঘটনা ও আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সাংবিধানিক ভিত্তির মাহেন্দ্রক্ষণ। নতুন প্রজন্মকে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হলে ১৭ এপ্রিলে মুজিবনগর দিবসের ঘটনাবলী সর্ম্পকেও জানতে হবে। লাখো প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত মহান স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাসকে ধারণ করেই আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, শিক্ষকদের মধ্যে প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান, প্রভাষক মোঃ আল আমীন, কর্মকর্তাদের মধ্যে উপ-রেজিস্ট্রার দীপক চন্দ্র মন্ডল এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে বায়োটেনোলজি ডিসিপ্লিনের তানযীমুল ইসলাম। এ সময় বিভিন্ন স্কুলের ডিন, রেজিষ্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত), ডিসিপ্লিন প্রধান, বিভাগীয় প্রধানসহ শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কেইউজে : ১৭ এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে)’র উদ্যোগে ইউনিয়ন কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ইউনিয়নের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাঈয়েদুজ্জামান সম্রাটের পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু।

আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন মো. সাহেব আলী, অমিয় কান্তি পাল, আনোয়ারুল ইসলাম কাজল, মলি­ক সুধাংশু, ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক নেয়ামুল হোসেন কচি, দপ্তর সম্পাদক জয়নাল ফরাজী, প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক নূর হাসান জনি, বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, আসাদুজ্জামান রিয়াজ, আলমগীর হান্নান, কাজী শামীম আহমেদ, বাপ্পী খান, আসাফুর রহমান কাজল, মো. নাজমুল হাসান, কাজী শান্ত, কবিরুজ্জামান বাপ্পী, এস কে রাসেল, এস এম জাহিদ।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ : বুধবার খুলনা শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে যথাযথ মর্যাদায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে “ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস” পালিত হয়। কর্মসূচীর মধ্যে ছিল আলোচনা সভা কবিতা আবৃত্তি ও রচনা প্রতিযোগিতা।

কলেজ অধ্যক্ষ মধাব চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপাধ্যক্ষ জিনাত জাহান চৌধুরী, অধ্যাপক শেখ দিদারুল আলম. মোজাহিদুল ইসলাম, আসাদউল্লাহ, ইমরান হোসেন প্রমুখ। সভায় বলা হয় মুজিবনগর সরকার গঠিত হওয়ার পর আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধ আরো বেগবান হয়।

বিআইডব্লিউটিএ সিবিএ : মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে বিআইডবিøউটিএ শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন (সিবিএ)’র আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টায়  টার্মিনাল ভবনস্থ ইউনিয়ন কার্যালয় এর আয়োজন করা হয়েছে। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি মো. জাকির হোসেন। বক্তৃতা করেন সদস্য সচিব মো. সজল মল্লিক, মো. আকতার হোসেন, মো. সোহেল রানা মোল্লা ও মো. শাহ আলম।

সভায় জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানসহ নিহত পরিবারের সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

 

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.