খুলনাকে উড়িয়ে দিল সিলেট সিক্সার্স

ক্রীড়া ডেস্ক
ঝড়ো ব্যাটিংয়ে সুর বেঁধে দিলেন আফিফ হোসেন ও লিটন দাস। দারুণ ব্যাটিংয়ে সঙ্গত করলেন সাব্বির রহমান ও মোহাম্মদ নওয়াজ। তাদের ব্যাটে বড় সংগ্রহ গড়া সিলেট সিক্সার্স জিতেছে সহজেই। খুলনা টাইটানসকে হারিয়ে নিয়েছে প্রথম দেখায় হারের মধুর প্রতিশোধ।
বিপিএলে শনিবারের প্রথম ম্যাচে ৫৮ রানে জিতেছে সিলেট। ১৯৬ রানের লক্ষ্য তাড়ায় ১৮.১ ওভারে ১৩৭ রানে গুটিয়ে যায় খুলনা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে দলকে ভালো শুরু এনে দেন লিটন ও আফিফ। মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলে শুভাশিস রায়কে ছক্কা হাঁকিয়ে শুরু করেন প্রমোশন পেয়ে ওপেনিংয়ে নামা আফিফ। দ্বিতীয় ওভারে দুটি করে ছক্কা-চারে ২০ রান তুলে নেন লিটন। উড়ন্ত সূচনা পেয়ে যায় সিলেট।
পরপর তিন ওভারে দুই ওপেনারের সঙ্গে জেসন রয়কে ফিরিয়ে সিলেটকে বড় একটা ধাক্কা দেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারকে স্লগ সুইপ করতে গিয়ে সীমানায় ধরা পড়েন ২২ বলে ৩৪ রান করা লিটন। ভাঙে ৭.৫ ওভার স্থায়ী ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি।
লং অনে ধরা পড়েন ডানহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান রয়। একই শট খেলার চেষ্টায় লং অনে ধরা পড়েন বাঁহাতি আফিফ। ৩৭ বলে খেলা এই তরুণের ৪৯ রানের ইনিংস গড়া পাঁচটি চার ও দুটি ছক্কায়। রানের জন্য ছটফট করা নিকোলাস পুরান টিকেননি বেশিক্ষণ। জুনাইদ খানের অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে ধরা পড়েন কিপারের গ্লাভসে।
দ্রুত চার উইকেট হারিয়ে দিক হারিয়ে ফেলা সিলেটকে দুইশ রানের কাছে নিয়ে যান সাব্বির ও নওয়াজ। অবিচ্ছিন্ন পঞ্চম উইকেটে ৪২ বলে গড়েন ৮৯ রানের জুটি। শুরুতে একটু সময় নেওয়া সাব্বির শেষের দিকে চড়াও হন বোলারদের ওপর। ২৭ বলে চারটি চার ও দুটি ছক্কায় ৪৪ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ক্রিজে যাওয়ার পর থেকে শট খেলা পাকিস্তানের অলরাউন্ডার নওয়াজ ২১ বলে অপরাজিত ৩৯ রান করেন।
বড় রান তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি খুলনার। চারটি চারে ১১ বলে ২০ রান করে ফিরে যান জুনাইদ সিদ্দিক। দুই ছক্কায় ১৬ রান করে বিদায় নেন আল আমিন জুনিয়র। রয়ের দুর্দান্ত এক ক্যাচে থামেন টেইলর। কিপার ব্যাটসম্যানের ২৩ বলে ৩৪ রানের ইনিংস গড়া তিনটি চার ও একটি ছক্কায়।
নাজমুল হোসেন শান্ত, অধিনায়ক মাহমুদউল­াহ ও ডেভিড ভিসা বেশিক্ষণ টিকেননি। পরপর দুই বলে ইয়াসির শাহ ও আরিফুল হককে ফিরিয়ে দেন নাবিল সামাদ। এরপর বেশি দূর এগোয়নি খুলনা ইনিংস। অলরাউন্ড নৈপুণ্যের জন্য ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন নওয়াজ। দশ ম্যাচে চতুর্থ জয় পেল সিলেট। সমান ম্যাচে অষ্টম পরাজয়ের স্বাদ পেল খুলনা।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.