করোনা : সর্বশেষ

খুমেক হাসপাতালের পরিচালককে পাবনায় বদলি

দ. প্রতিবেদক
খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালের পরিচালক ডা. এটিএম মঞ্জুর মোর্শেদকে ফের বদলি করা হয়েছে। এবার তাকে বদলি করা হয়েছে পাবনা মানসিক হাপাতালের পরিচালক হিসেবে। আজ মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের (পার-২ অধিশাখা) উপ-সচিব শারমিন আক্তার জাহান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে তাকে বদলি করা হয়। তবে আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে বদলি কর্মস্থলে যোগদান না করলে তিনি তাৎক্ষণিক স্ট্যান্ডরিলিজ মর্মে গণ্য হবেন বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।
এর আগে গত ১২ মার্চ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অপর এক আদেশে ডা. মঞ্জুর মোর্শেদকে খুমেক হাসপাতাল থেকে বরিশাল শের-ই- বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বদলি করা হয়। ২০ মার্চের মধ্যে সেখানে তার যোগদানের নির্দেশনা থাকলেও তিনি যোগ দেনন
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডা. মোর্শেদ বলেন, ‘আসলে ভালো কিছু হোক, এটা কেউ চায় না।’ এ ব্যাপারে আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।
তবে খুমেকের একাধিক সূত্রে মেয়াদোত্তীর্ণ সরঞ্জামাদি পাঠানোকে কেন্দ্র করে আইইডিসিআর কর্মকর্তার সাথে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের সত্যতা পাওয়া গেছে।
প্রসঙ্গত, ডা. এটিএম মঞ্জুর মোর্শেদসহ কয়েকজন চিকিৎসক ও এক ঠিকাদারের বিরুদ্ধে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮টি হেভিযন্ত্র, ১০টি এয়ারকুলার, ২টি অটোক্লেভ মেশিন কেনা এবং একই মেশিন বারবার নষ্ট দেখিয়ে ২২ কোটি টাকা দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।
জড়িত অন্যরা হলেন, খুমেক হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক (অ্যানেসথেসিয়া) ডা. শেখ ফরিদ উদ্দিন, ইএমটি ডা. শাহিন হোসেন ও ঠিকাদার সাইফুল ইসলাম। এ দুর্নীতির তদন্তের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে গত ৩ ফেব্রুয়ারি খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালককে নিয়োগ করা হলেও তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন। যে কারণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ১৬ মার্চ অপর এক পত্রে বিষয়টি তদন্তের জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. বাকির হোসেনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *