April 25, 2024
আঞ্চলিক

খুবিতে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য, নিরন্তর গবেষণাই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের প্রধান

খবর বিজ্ঞপ্তি
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ডিসিপ্লিনে প্রভাষক পদে ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্কুলে যোগদানকারী সহকারি শিক্ষক পদে যোগদানকারি শিক্ষকদের সাথে এক পরিচিতিমূলক অনুষ্ঠান গতকাল বিকেল সাড়ে চারটায় প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান যোগদানকৃত নতুন শিক্ষকদেরকে স্বাগত জানিয়ে বলেন শিক্ষকতার মতো মহাৎ পেশা পৃথিবীতে আর দ্বিতীয়টি নেই। তিনি বলেন, একজন আদর্শ শিক্ষক হতে হলে তাঁর মধ্যে মাল্টিডিসিপ্লিনারী জ্ঞান থাকতে হবে। সবসময়ই পড়াশোনা, জ্ঞান চর্চা তথা গবেষণা নিয়ে ভাবতে হবে। কারণ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের দায়িত্ব কেবল পাঠদানই নয়, তাঁর দায়িত্ব শিক্ষাদান ও গবেষণা। নিরন্তর জ্ঞান সাধনায় ব্রত থাকাই একজন শিক্ষকের প্রধান পরিচায়ক। উপাচার্য বলেন, নিয়োগ আবেদনকারীদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সর্বোচ্চ মেধাবী ও যোগ্য প্রার্থীকে নিয়োগ দিয়েছেন। তিনি নতুন শিক্ষকদেরকে নিবেদিতভাবে কাজ করার আহবান জানান। তিনি সাম্প্রতিক সময়ে স্কুল কলেজে শিক্ষা দশায় হতাশা প্রকাশ করে বলেন বাণিজ্যিক মনোভাব নিয়ে কোনোদিন আদর্শ শিক্ষক হওয়া যায় না এবং শিক্ষার্থীরাও সেই শিক্ষকের নিকট থেকে ভালো কিছু শিখতে পারে না। পরিচিতি অনুষ্ঠানে নতুন শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে শুভেচ্ছা জানিয়ে আরও বক্তব্য রাখেন ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস। এর আগে সকালে সকাল সাড়ে ১০ টায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ প্রশাসন ভবনের সম্মেলন কক্ষে কয়েকটি শ্রেণিতে নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পরিচিতিমুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান বলেন, যেকোনো কর্মক্ষেত্রে সফল হতে হলে দেশপ্রেম, সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতা অপরিহার্য। তিনি বলেন যারা নতুন কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করে তাদেরকে শুরু থেকেই প্রতিষ্ঠানের প্রতি মমত্ববোধ এবং কাজের প্রতি দায়িত্বশীল হতে হবে। নতুন নতুন বিষয় শেখার ব্যাপারে আগ্রহ থাকতে হবে এবং সময়ানুবর্তী হতে হবে। তিনি বলেন প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ গতিশীল উন্নয়নের ধারায় রয়েছে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে যে ভিশন ঘোষণা করা হয়েছে তা অর্জনে সকল স্তরে অঅন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। একই সাথে তিনি বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে সকল ক্ষেত্রে দক্ষতা অর্জনের ওপর গুরুত্ব দেন। তিনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন পদে যোগদানকারী কর্মকর্তা-কর্মচারিদের প্রতি নিজেদের ক্যারিয়ার গঠনের জন্য এখন থেকেই আন্তরিকতার সাথে কাজ করে দক্ষতা অর্জনের আহবান জানান। নতুন নিযুক্তদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (কাউন্সিল) টিপু সুলতান, অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের সভাপতি উপ-পরিচালক শেখ মুজিবুর রহমান, পরিষদের সাধারণ সম্পাদক উপ-রেজিস্ট্রার দীপক চন্দ্র মন্ডল এবং নবনিযুক্তদের মধ্যে সেকশন অফিসার হিমাদ্রী শেখর মন্ডল, অফিস সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর তাজদিক-উর রহমান। এ সময় নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-কর্মাচারি উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *