ক্রিকেটে দুই বছর নিষিদ্ধ জয়াসুরিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক
বড় শাস্তিরই আভাস ছিল। শেষ পর্যন্ত ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) দুর্নীতি দমন ইউনিট কঠিন শাস্তিই দিয়েছে সনাথ জয়াসুরিয়াকে। বিশ্বকাপ জয়ী শ্রীলঙ্কান তারকাকে সব ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে তারা।
দুর্নীতি দমন ইউনিটের তদন্তে সহযোগিতা করতে অস্বীকৃতি জানানোয় কঠিন শাস্তি শুনলেন জয়াসুরিয়া। সোমবার ঘোষিত এই শাস্তিতে ২০২১ সাল পর্যন্ত ক্রিকেট বিষয়ক সব ধরনের কার্যক্রমে নিষিদ্ধ থাকবেন তিনি।
গত বছরের অক্টোবরে আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট সাবেক লঙ্কান অধিনায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলে। দ্বীপ দেশটির ক্রিকেটের দুর্নীতি নিয়ে তদন্তে নেমেছিল আইসিসি এই ইউনিট। দেশটির সর্বকালের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার জয়াসুরিয়ার কাছ থেকেও তদন্তে সাহায্য চেয়েছিল তারা। কিন্তু ‘মাতারা হারিকেন’ কোনও ধরনের সাহায্য করতে রাজি ছিলেন না।
যাতে তার বিরুদ্ধে আইসিসির দুর্নীতি দমনের দুটি ধারা ভাঙার অভিযোগ তোলা হয়। প্রথমত, জয়াসুরিয়া সহযোগিতা না করে তদন্তে বাধা তৈরি করেছেন ও দেরি করিয়েছেন। দ্বিতীয় অভিযোগ ছিল আরও গুরুতর, সাবেক লঙ্কান অধিনায়ক নিজের কিংবা অন্যের তদন্ত সংশ্লিষ্ট বিষয় গোপন কিংবা নষ্ট করেছেন।
জয়াসুরিয়া এমনকি নিজের ব্যবহার করা মোবাইল ফোনও দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন দুর্নীতি দমন ইউনিটকে। আইসিসির তদন্ত দলের অভিযোগ গঠনের একদিন পর জয়াসুরিয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন, তিন সবসময়ই ‘স্বচ্ছ’ ছিলেন এবং কোনও রকম ‘দুর্নীতি কার্যক্রমে’ জড়িত ছিলেন না। ম্যাচ ফিক্সিং কিংবা পিচ-ফিক্সিংয়ের মতো বিষয়েও তার কোনও যোগসূত্র নেই বলে দাবি করেছিলেন।
যদিও শেষ পর্যন্ত রক্ষা হলো না জয়াসুরিয়ার। আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটের কঠিন শাস্তির বোঝা পড়লো তার মাথায়। ২০২১ সাল পর্যন্ত ক্রিকেট বিষয়ক সবকিছুতে নিষিদ্ধ থাকবেন ২২ গজের অন্যতম সেরা এই তারকা। ক্রিকইনফো।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.