কোস্টগার্ডের কাছে ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর করল খুলনা শিপইয়ার্ড

 

 

 

 

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের নির্মিত বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড বাহিনীর তিনটি ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেল হস্তান্তর, দুইটি হাইস্পিড বোট (ফেরি) এবং দুইটি হাইস্পিড বোট (ডাইভিং) এর কিল লেয়িং অনুষ্ঠান আজ দুপুরে খুলনা শিপইয়ার্ড প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, প্রাচীনকালে বাংলাদেশ জাহাজ নির্মাণ-দক্ষতায় সমৃদ্ধ দেশ ছিল। ঔপনিবেশিক আমলে এ ধারায় ছেদ পড়ে। একসময়ের লাভজনক প্রতিষ্ঠান খুলনা শিপইয়ার্ড রুগ্ন শিল্পে পরিণত হয়। ১৯৯৯ সালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনা শিপইয়ার্ডকে নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেয়ার যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেন। দক্ষ ব্যবস্থাপনায় প্রতিষ্ঠানটি আজ মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে ও পুনরায় লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। দেশে একশোটির অধিক ইপিজেড স্থাপন করে ৫০ লাখের অধিক কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা সরকারের আছে। দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে ভিশন- ২০২১, ভিশন – ২০৪১ ও ডেল্টা প্লান- ২১০০ বাস্তবায়নের পথে অগ্রসর হচ্ছে বাংলাদেশ। খুলনা শিপইয়ার্ড নিজেকে রুগ্ন প্রতিষ্ঠানের অবস্থান হতে সমৃদ্ধ জায়গায় নিয়ে আসার পাশাপাশি বৈদেশিক মুদ্রা দেশে রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখছে। এ প্রতিষ্ঠান শান্তি ও আপদকালীন সময়ে সেবা দিতে পারবে বলে আশা করা যায়। অদূর ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠানটি বিদেশে জাহাজ রপ্তানির সক্ষমতা অর্জন করবে ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয় যে, বিগত ২৩ মে ২০১৮ তারিখে ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেল তিনটির লঞ্চিং অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমান সরকারের  সময়োপযোগী সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে প্রতিবেশি দেশ ভারত ও মায়ানমারের সাথে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমা নির্ধারিত হওয়ায় বাংলাদেশ এক বিশাল সমুদ্র এলাকা অর্জন করেছে। সমুদ্র সম্পদে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় টহল প্রদান, সমুদ্র বন্দরের নিরাপত্তা, সন্ত্রাস দমন, মাদকের বিস্তার রোধ, মানব পাচার প্রতিরোধ, সমুদ্রচারীদের জীবন রক্ষা এবং সর্বোপরি বøু-ইকোনমি সংশ্লিষ্ট কার্যাবলিতে নিরাপত্তা প্রদান করে চলেছে। এ দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনে নবনির্মিত দ্রæতগতি সম্পন্ন ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেলসমূহ গুরুত্বপূর্ণ ও কার্যকর ভূমিকা রাখবে। অনুষ্ঠানে আরও জানানো হয়, ইনসোর প্যাট্রোল ভেসেল ছাড়াও খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের জন্য টাগ বোট, ভাসমান ক্রেন ও পন্টুন তৈরি করছে। ইতিপূর্বে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য প্রতিষ্ঠানটি পাঁচটি প্যাট্রোল ক্রাফট ও দুটি লার্জ প্যাট্রোল ক্রাফট তৈরি করে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল এম আশরাফুল হক। অনুষ্ঠানে স্বাগত জানান খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর আনিছুর রহমান মোল্লা।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.