কেশবপুরে গরু চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনিতে যুবক নিহত

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি

যশোরের কেশবপুর উপজেলার হাড়িয়াঘোপ গ্রামের সোমবার রাতে গরু চুরি করতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয়ে আনিন নাঈম (২৪) নামে এক যুবক  নিহত হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ভান্ডারখোলা এলাকায় প্রতি রাতেই বিভিন্ন বাড়িতে গরু চুরি হচ্ছিল। গরু চুরি ঠেকাতে এলাকাবাসিরা প্রতি রাতেই পাহারা দিয়ে আসছিলো। সোমবার রাতে হাড়িয়াঘোপ গ্রামের আবদুস সোবহানের বাড়িতে গরু চুরি করতে আসলে এলাকাবাসিরা খবর পেয়ে চোরকে ধাওয়া দেয়। পালিয়ে যাওয়ার সময় চোরটি ভান্ডাখোলা গ্রামে রাস্তার পাশে একটি টিউবওয়েলে বেধে পড়ে যায়। এলাকাবাসিরা সেখানে তাকে মারপিট করলে সে নিহত হয়। নিহত চোর আনিন নাঈম উপজেলা নতুন মুলগ্রামের মশিয়ার রহমান সরদারের ছেলে। তার বিরুদ্ধে একাধিক চুরি মামলা রয়েছে।

এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহিন জানান, গণপিটুনিতে আনিন নাঈম নামের এক চোর নিহত হয়েছে। পার্শ্ববর্তী কলারোয়া থানাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক চুরি মামলা রয়েছে। নিহতের বিরুদ্ধে একটি চুরি মামলা রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে উপজেলার ভান্ডারখোলা গ্রামের তিন রাস্তার মোড়ে জনৈক হাবিবুর রহমানের দোকানের সামনে রাস্তার ওপর পড়ে থাকা লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এঘটনায় নিহতের পিতা মশিয়ার রহমান সরদার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ৫০ থেকে ৬০ জনের নামে মামলা করেছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.