কুমিল্লায় পিতার কর্মস্থলে কন্যা ধর্ষণের শিকার

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
কুমিল্লার লাকসামে পিতার কর্মস্থলে এক কিশোরীকে (১৬) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার ওই কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে লাকসাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই কিশোরীর পিতা বেশ কিছুদিন ধরে কৃষ্ণপুর এলাকায় তাজুল ইসলাম মজুমদারের (৪২) মাছের পুকুরে পাহারাদারের কাজ করতো। পুকুরের পাশেই একটি টিনের ঘরে পিতা-মাতা ও এক ভাইসহ বসবাস করতো ওই কিশোরী। গত ৩ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১০টার দিকে পুকুরের মালিক তাজুল ইসলাম মজুমদার কৌশলে ঘরের উত্তর পাশে নিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। এ সময় কিশোরীর মা ঘুমিয়ে ছিলেন এবং পিতা পুকুর পাহারায় ব্যাস্ত ছিলো। ঘটনার পর কিশোরী কান্নাকাটি করতে থাকে। কিশোরীর ভাই বাইরে থেকে এসে কান্নার কারণ জানতে চাইলে তাজুল ইসলাম তাকে মারতে আসে। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধস্তা ধস্তি হয়। অভিযুক্ত তাজুল ইসলাম মজুমদার কৃষ্ণপুর এলাকার মৃত আবু তাহের মজুমদারের ছেলে।
এদিকে শুক্রবার ঘটনাটি স্থানীয় উত্তরদা ইউপি চেয়ারম্যান হার“নুর রশিদকে জানালে তিনি আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেন। কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে লাকসাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে লাকসাম থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাজুল ইসলাম মজুমদারকে গ্রেফতার করে।
এ বিষয়ে লাকসাম থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, ভিকটিমের শারীরিক পরিক্ষা সহ ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। অভিযুক্ত আসামি তাজুল ইসলাম মজুমদারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার তাকে কুমিল্লার আদালতে প্রেরণ করা হবে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.