কার্যক্রমে ডিজিটালাইজেশনের বিকল্প নেই : গণপূর্তমন্ত্রী

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় মন্ত্রণালয় ও আওতাধীন সব দপ্তর-সংস্থার কার্যক্রমে ডিজিটালাইজেশনের কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

তিনি বলেছেন, নিয়মের বাইরে কাউকে কোনো কিছু করতে দেওয়া হবে না। কারও বিরুদ্ধে ন্যূনতম অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। দপ্তরগুলোতে দুর্নীতি ও অনিয়মমুক্ত কাজের পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। ভুল-ত্রæটি থাকলে আত্মশুদ্ধি করতে হবে।

গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সরকারের এক বছর পূর্তিতে ‘স্বপ্নযাত্রার এক বছর’ শিরোনামে মন্ত্রণালয়টির গত এক বছরের কার্যক্রম পর্যালোচনা সভায় দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকারের সভাপতিত্বে মন্ত্রণালয়ের সব পর্যায়ের কর্মকর্তা ও আওতাধীন দপ্তর-সংস্থার প্রধান সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় কর্মকর্তাদের উদ্দেশে গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, নতুন বছরে মন্ত্রণালয়ের সব প্রকল্পে কাজের গতি বাড়াতে হবে। নতুন নতুন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে। অকারণে চলমান উন্নয়ন প্রকল্প বিলম্বিত করা যাবে না। পরিত্যক্ত সম্পত্তি উদ্ধারে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। সরকারি সম্পত্তি অবৈধ দখলমুক্ত করে উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করতে হবে। সম্মিলিত প্রচেষ্টা না থাকলে আমরা এগোতে পারব না।

তিনি বলেন, মন্ত্রণালয় ও দপ্তর-সংস্থার সবাইকে একটি পরিবার হয়ে কাজ করতে হবে। তা না হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের যে অপ্রতিরোধ্য গতি, সেটা আমরা ধরে রাখতে পারব না। সংস্থাগুলোর কাজে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও গতিশীলতা নিশ্চিত করতে হবে।

সভায় গণপূর্ত সচিব বলেন, গুণগত মান বজায় রেখে সঠিক সময়ে স্বচ্ছতার সঙ্গে আগামী বছরগুলোতে প্রকল্প বাস্তবায়নে সবাইকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সভার শুরুতে মন্ত্রণালয়ের গত একবছরের কার্যক্রম তুলে ধরে আগামী বছরের পরিকল্পনা নিয়ে সবার মতামত গ্রহণ করা হয়।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.