কলারোয়ায় মুুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বাড়ী ঘর ভাংচুর : আহত ১

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি

কলারোয়ায় এক মুুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এতে ওই পরিবারের এক সদস্য মারাক্তক জখম হয়ে কলারোয়া সরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল শনিবার সকালে কলারোয়া থানায় ৯জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে ক্ষতিগ্রস্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুনার রশিদ গাজী।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, কলারোয়া উপজেলার কেড়াগাছি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুনার রশিদ গাজীর নাতি ছেলে আল মামুন হোসেন রাজুর সাথে একই এলাকার রফিকুল ইসলামের সহিত দলীয় কোন্দল ও টাকা পয়সা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে শত্রæতা রয়েছে। শনিবার সকাল ৭টার দিকে কোন কারন ছাড়াই রফিকুল ইসলাম মুুক্তিযোদ্ধার কন্যা আজমিরা খাতুনকে দেখে তাদের পরিবারের সদস্যদের উদ্দেশ্য করে গালমন্দ করে।

এতে সে প্রতিবাদ করাতে রফিকুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে এবং তার ডাক চিৎকারে আলাউদ্দীন, সাদ্দাম হোসেন, ইব্রাহিম হোসেন, সেলিম হোসেন, এজাহার আলী, শরিফ হোসেন, ইসমাইল হোসেন ও মোসলেম আলী দলবদ্ধ হয়ে দেশি অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে মুুক্তিযোদ্ধার কন্যা আজমিরা খাতুন (৪০) কে কুপিয়ে জখম করে।

এসময় সন্ত্রাসীরা আজমিরা খাতুনকে শ্লীলতাহানি করে তার গলায় থাকা স্বর্ণের গহনা ছিনিয়ে নেয়। এছাড়া বসত বাড়ী ভাংচুর করে। পরে এলাকাবাসী উদ্ধার করে মুুক্তিযোদ্ধার কন্যা আজমিরা খাতুনকে কলারোয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। এঘটনায় কেঁড়াগাছি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুনার রশিদ গাজী বাদী হয়ে  ৯জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *