February 25, 2024
আঞ্চলিক

কলারোয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের সালিশে হামলায় সাবেক ইউপি সদস্য আহত

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি

কলারোয়ার কেঁড়াগাছি ইউনিয়ন পরিষদের সালিশে বৈঠকে হামলায় এক সাবেক ইউপি সদস্য আহত হয়েছে। এঘটনায় কলারোয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

গতকাল বুধবার সকালে উপজেলার বোয়ালিয়া গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী সাবেক সহকারী অধ্যপিকা আনজুমান আরা বেগম (৬৩) জানান-তার স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রহমান ২০০১ সালে মারা যান। এর পরে তিনি ২০১১ সালে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হন। এর পরে তিনিও ২০১১ সালে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হন। ২০১২ সালে হজ্জ্ব এ যাওয়ার সময় তিনি তার বাগান থেকে কয়েকটি গাছ বিক্রয় করেন। এর পরে তিনি আরো অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। প্রতি মাসে চিকিৎসার জন্য ভারতে যান। এছাড়া কয়েকটি মেজর অপারেশন করতে হয়। প্রতিমাসে কেমো দিতে হয়। তিনি আর চলতে পারেন না। মৃত্যুর সঙ্গে সংগ্রাম করে কোন রকম বেচে আছেন। তিনি অসুস্থ্য হওয়ার পরে তার স্বামীর চাচাতো ভাই একই গ্রামের মৃত আনছার আলীর বড় ছেলে মুজিবর রহমানের উপর জমা জমি, পুকুর, ঘর বাড়ীসহ তার দিয়ে ঘেরা বেড়া দেয়া ১১বিঘা জমির উপর থাকা আম, লেবু, নারিকেল, মেহগনিসহ বিভিন্ন গাছ গাছালি দেখা শুনার দায়িত্ব দিয়ে চাবি হস্তান্তর করেন। এসময় তাকে বলাছিলো যে-কোন প্রকার ওই জমি থেকে গাছ গাছালি বিক্রয় করা যাবেনা। এর পর থেকে তিনি তার সন্তানদের নিয়ে সাতক্ষীরা শহরে বসবাস করেন।

দীর্ঘ ৭ বছর পরে বাগানের খোজ নিয়ে গাছে কাগুজি লেবু আছে কিনা জিজ্ঞাসা করলে মুজিবার রহমান বলেন-বাগানে কোন লেবু হয়নি। পরে তার মেয়ে গ্রামের বাড়ীতে ঘুরতে এসে দেখেন যে তাদের বাগন থেকে এক ব্যক্তি ২বস্তা লেবু নিয়ে বের হচ্ছে। তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে বলে মুজিবার রহমানের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা দিয়ে তিনি ক্রয় করেছেন। এর পরে বিভি ভাবে খোজ নিয়ে যানা যায়-তার বাগান থেকে চুরি করে মুজিবার রহমান ৭লাখ ৬২ হাজার টাকার বিভিন্ন প্রকার কাছ গাছালি কেটে বিক্রয় করেছে। এনিয়ে গত ১৮ অক্টোবর কেঁড়াগাছি ইউনিয়ন পরিষদের একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়। পরে ২৩ অক্টোবর বিকাল ৫টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদে উভয় পক্ষের মধ্যে শালিসে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় ৭০ জনের উপস্থিতে শালিস চলাকালে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম বিবাদী মুজিবর রহমানের পক্ষ নিয়ে এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্বাক্ষী সাবেক মেম্বার জিয়াউর রহমানকে ধরে টানা হেঁচড়াসহ মারপিট করে লাঞ্চিত করে। পরে ইউপি চেয়ারম্যান আফজাল হোসেন হাবিল বাদী পক্ষে কে আইনের আশ্রায় নেয়ার পরামর্শ দিলে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী সাবেক সহকারী অধ্যপিকা আনজুমান আরা বেগম বাদী হয়ে কলারোয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। এদিকে অভিযুক্ত ইউপি সদস্যের সেল ফোন বন্ধ থাকায় তার মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *