ওমর সানী শিল্পীদের ছোট করছেন, ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি জায়েদ খানের

মুখ খুললেন জায়েদ খান। তিনি মনে করেন নিজেদের ব্যক্তিগত বিষয় সবার সামনে উপস্থাপন করে সব শিল্পীদের ছোট করছেন ওমর সানী।

নিজেকেও ‘নির্দোষ’ দাবি করেছেন তিনি।

গত কয়েকদিন ধরে ওমর সানীর চড়, জায়েদ খানের পিস্তল বের করা নিয়ে সারা দেশে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়। এর মধ্যে সোমবার (১৩ জুন) মৌসুমী-ওমর সানীর ছেলে ফারদিন এহসান অভিযোগ তোলেন জায়েদের বিরুদ্ধে। সানির সুরেই কথা বলেন ফারদিন। জানান, মা মৌসুমীকে খান সাহেব ‘ডিস্টার্ব’ তো করতেনই, রেহাই পাননি কমবেশি অনেকেই!

বাপ-বেটার অভিযোগের পর জায়ের ভাষ্য সামনে আসে। জানা যায়, নিজেকে নির্দোষ জাহির করার পাশাপাশি সানীর হাতে চড় খাওয়া ও লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছেন তিনি। অপেক্ষা করছেন পরবর্তী পরিস্থিতির। তার ওপর ভিত্তি করেই ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন। তিনি এও বলেছেন, চড় ও গুলি করার মিথ্যা ঘটনাটি নিয়ে মৌসুমীর বক্তব্যের পর বিষয়টি থেমে যাওয়া উচিত।

সোমবার জায়েদ-সানী প্রসঙ্গে গণমাধ্যমে কথা বলেন মৌসুমী। জায়েদকে তিনি ভালো ছেলে উল্লেখ করে নিজের স্বামীর অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন। গণমাধ্যমকে জায়েদ বলেন, অভিযোগ থেকে অব্যাহতি পেলাম। কিন্তু ওমর সানী সিনিয়র হয়েও কেন তাকে অসম্মানিত করলেন, তা বুঝতে পারছেন না ‘নগর মাস্তান’ খ্যাত এই নায়ক।

সিনিয়র শিল্পী হিসেবে ওমর সানীকে কিছু বলতে চান না জায়েদ। তিনি মনে করেন, স্বামী-স্ত্রীর সমস্যা তাদের পারিবারিকভাবেই সমাধান করা উচিত ছিল। কিন্তু জনপ্রিয় হয়েও সানী নিজেকে সবার সামনে ছোট করে ফেলেছেন। এতে শিল্পীদের প্রতি মানুষের সম্মানবোধ নষ্ট হয়ে গেল বলেও মনে করেন ‘অদৃশ্য শত্রু’ সিনেমার জায়েদ।

মৌসুমী-সানীর বক্তব্যের পর তাদের সংসারে ফাঁটল নিয়ে আলোচনা হচ্ছে সবখানে। বিষয়টি চোখ এড়ায়নি জায়েদেরও। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, কেউ কেউ বলার চেষ্টা করছেন জায়েদ খানের কারণে তাদের সংসার ভাঙবে। অনেকেই অনেক কিছু খোঁজার চেষ্টা করবেন। আমি মৌসুমী আপুকে সম্মান করি। তার সম্মান বজায় থাকা উচিত। কিন্তু কিছু মানুষ বিষয়টি নিয়ে নোংরামি করছে। শিল্পীদের সবাই সম্মান করে, সেই জায়গা ধরে রাখা উচিত।

চড় ও পিস্তলকাণ্ডের ব্যাপারে নিজের জায়গা পরিষ্কার করে জায়েদ বলেন, আমার মনে হয় ওমর সানী ভাই ভুল করেছেন। তার সুবুদ্ধির উদয় হোক।

সানী যা করেছেন, তা তার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে যায় না বলেই মনে করেন জায়েদ। যা হয়েছে, তা নিয়ে তার নিজেরই ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। কিন্তু পরিস্থিতি কী হয়; তা দেখার অপেক্ষা করছেন এ চিত্রনায়ক। পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেবেন। তিনি মানুষের কাছে শিল্পীদের হাস্যকর করতে চান না, কাদা–ছোড়াছুড়ি করতে চান না।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.