এবার র‌্যাবের হাতে আটক ভুয়া জজ-ম্যাজিস্ট্রেট-জেলা প্রশাসক

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক
স¤প্রতি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কর্মকর্তাদের পরিচয় ব্যবহার করে সরকারি কর্মকর্তাদের কাছ থেকে অর্থ আদায়কারী একটি চক্রের তিন সদস্যকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এবার গাজীপুর থেকে এমন আরেকটি চক্রের পাঁচ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব।
আটককৃতরা হলেন- মো. মাসুদ রানা (৩৫), গুলশান আরা লিজা (২৮), মো. রাজু আহমেদ (৪০), তার স্ত্রী আকলিমা আক্তার (২৫) এবং তাছলিমা খাতুন (৩০)। বিভিন্ন জায়গায় নিজেদেরকে জেলা জজ, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে আসছিল। তিন নারীসহ পাঁচজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে র‌্যাব।
বৃহস্পতিবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে গাজীপুর মহানগরের কোনাবাড়ী থানার বাইমাইল হাজী কলোনীর নূরুল ইসলামের ভাড়া বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। তারা গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ভাড়া থেকে প্রয়োজনে সংঘবদ্ধ হয়ে কাজ করত বলে জানিয়েছে র‌্যাব।
র‌্যাব-১ এর পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুল­াহ আল মামুন জানান, আটককৃতরা নিজেদেরকে প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করেছে। তারা নিজেদেরকে বিভিন্ন সময় ভুয়া জেলা জজ ও চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং জেলা প্রশাসক পরিচয় দিয়ে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন, উর্ধ্বতন বন কর্মকর্তা, ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের ব্যবস্থাপক, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, রেঞ্জ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তাদের বিভিন্ন সময়ে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নেয়। এই প্রতারক চক্রের বেশকিছু সদস্য দেশের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থান করছে এবং এদের প্রত্যেকেরই কমপক্ষে ৮টি করে মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট রয়েছে।
ওই কর্মকর্তা জানান, তারা সবাই একই পন্থায় বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ফোন নম্বর সংগ্রহ করে, কখনও চীফ জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসক, কখনওবা জেলা জজ, আবার কখনও সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মিল-কারখানার মালিক এবং নিরীহ মানুষকে হয়রানি করে আসছে। বিভিন্ন মোবাইল অপারেটর গ্রাহকদেরকে ফোন করে তারা তাদের নিকট আত্মীয়দের বিপদের কথা বলে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে টাকা আত্মসাৎ করে আসছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.