February 25, 2024
আঞ্চলিক

একমাত্র বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনাই দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের কথা ভাবেন

সদর থানার আ’লীগের আলোচনা সভায় সিটি মেয়র

 

খবর বিজ্ঞপ্তি

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, একমাত্র বঙ্গবন্ধু’র কন্যা শেখ হাসিনাই পারেন বাংলাদেশ তথা বাঙালির উন্নয়ন করতে। এ অঞ্চলে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত তারই প্রকৃষ্ট উদাহরণ। খুলনায় শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের মধ্যদিয়ে তিনি পুনরায় দেখিয়ে দিলেন যে তিনিই দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের কথা ভাবেন।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার পরে অনেক সরকার এসেছে। সবাই জনগণকে প্রত্যাশা দিয়েছে ভোটের জন্য, কিন্তু প্রত্যাশার স্থানে জনগণের সাথে প্রতারণ করেছে সব সময়ই। একমাত্র শেখ হাসিনাই প্রতিশ্রæতির থেকেও বেশী উন্নয়ন করেছে এ অঞ্চলে। তিনি বলেন, ’৯৬ এ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা গ্রহণের পরে খুলনায় শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতাল স্থাপন করেছিলেন। ২০০১ সালে ভোট কারচুপির মাধ্যমে বিএনপি ক্ষমতায় এসে সেই হাসপাতালের সকল আধুনিক যন্ত্রপাতি বগুড়ায় নিয়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালটি। পুনরায় শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে বিশেষায়িত হাসপাতালটি চালু করেন। সেকারনেই আওয়ামী লীগ মানে শেখ হাসিনা আর উন্নয়ন মানেই শেখ হাসিনা। আজ খুলনায় “শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন শুধু চিকিৎসা সেবাকেই নয় এ অঞ্চলের মানুষের জীবন মান উন্নয়নে ভীষণ ভাবে গতি ফিরিয়ে আনবে। সেজন্যে দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একযোগে এই উন্নয়নের ধারাকে টিকিয়ে রাখতে হবে।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে সদর থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন বিষয়ক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সদর থানার সভাপতি এ্যাড. মো. সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো. সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ নেতা নুরইসলাম বন্দ, এ্যাড. আইয়ুব আলী শেখ, শ্যামল সিংহ রায়, মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, এ্যাড. তারিক মাহমুদ তারা।

এসময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা শেখ হায়দার আলী, জামাল উদ্দিন বাচ্চু, এ্যাড. অলোকা নন্দা দাস, শেখ নুর মোহাম্মদ, ফেরদৌস হোসেন লাবু, শেখ ফারুক হোসেন, গাজী মোশাররফ হোসেন, শেখ এশারুল হক, আতাউর রহমান শিকদার রাজু, মো. শিহাব উদ্দিন, এ্যাড. শামীম মোশাররফ, সাহেবুর রহমান পিটু মোল্লা, মো. শামীমুজ্জামান, এ্যাড. শেখ এনামুল হক, এ্যাড. কে এম ইকবাল, এ্যাড. একেএম শাজাহান কচি, এইচ এম তৌহিদ, শেখ আবেদ আলী, দিলীপ কুমার, এ্যাড. জহিরুল ইসলাম পলাশ, মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম পিটু, শাহ মো. জাকিউর রহমান জাকির, এস এম আকিল উদ্দিন, মো. আমির হোসেন, রফিকুল ইসলাম পিটু, মো. মোতালেব মিয়া, মো. রিয়াজ হোসেন, কাজী নজরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম খোকন, আব্দুর রশিদ খোকন, মিজানুর রহমান নাজু, শওকত আলী খোকন, হিরু তালুকদার, লিখন খান, আবুল কালাম আজাদ, কাউন্সিলর কনিকা সাহা, তাসদিকুর রহমান জয়, রনবীর বাড়ৈই সজল, হায়দার আলী মোল্লা, রেহানা চৌধুরী, নুরিনা রহমান বিউটি, ফেরদৌসি আলম রিতা, এ্যাড. নাসরিন নাহার পেস্তা, রেকসোনা কালাম লিলি সহ দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। খুলনায় শেখ হাসিনা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন দেয়ায় আগামী ২১ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০টায় দলীয় কার্যালয় হতে আনন্দ মিছিলের সিদ্ধান্ত হয়।

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *