উইঘুর নিপীড়নের প্রতিবাদে হুয়াওয়ের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ গ্রিজম্যানের

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতনে সহযোগিতার অভিযোগে হুয়াওয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেন ফ্রান্সের জাতীয় ফুটবল দলের অন্যতম সদস্য এবং বার্সেলোনা তারকা আন্তোনিও গ্রিজম্যান। তিনি আর চীনা প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর থাকছেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ইনস্টাগ্রামের এক পোস্টে গ্রিজম্যান লিখেছেন, ফেসিয়াল রিকগনিশন (মুখচ্ছবি শনাক্তকরণ) সফটওয়্যার ব্যবহার করে হুয়াওয়ে ‘উইঘুর অ্যালার্ট’ তৈরিতে অবদান রেখেছে এমন দৃঢ় সন্দেহের জেরে আমি তাৎক্ষণিকভাবে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে অংশীদারিত্ব শেষ করছি।

তিনি বলেন, আমি হুয়াওয়েকে শুধু এসব অভিযোগ অস্বীকার করে খুশি থাকা নয়, এই গণ-নিপীড়নের নিন্দা করা এবং যত দ্রুত সম্ভব সমাজের নারী-পুরুষদের অধিকারকে সম্মান করার ক্ষেত্রে প্রভাব কাজে লাগাতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানাই।

জাতিসংঘের ধারণা, জিনজিয়াংয়ে ১০ লাখেরও বেশি তুর্কি মুসলিমদের বন্দিশিবিরে আটকে নির্যাতন করছে চীন। এদের বেশিরভাগই উইঘুর সম্প্রদায়ের লোক।

 

গ্রিজম্যানের এই প্রতিবাদের আগে গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক নজরদারি গবেষণা সংস্থা আইপিভিএমের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, হুয়াওয়ে চীনে এমন একটি সফটওয়্যার তৈরি করছে, যেটি উইঘুর সম্প্রদায়ের কারও মুখ দেখলেই পুলিশের কাছে খবর পাঠাতে পারবে।

ইউরেশিয়ান স্পোর্টস ইন্ডাস্ট্রির অধ্যাপক সাইমন চ্যাডউইক আল জাজিরাকে বলেন, ক্রীড়াব্যক্তিত্ব হিসেবে কোনও চীনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করার ঘটনা প্রায় অভূতপূর্বই।

তিনি বলেন, গ্রিজম্যান যা করেছেন, তা শুধু মুখে বলাই নয়, তিনি কাজেও করে দেখিয়েছেন।

চীন শুধু ক্রীড়াবিদদের জন্যই নয়, অনেক ইউরোপীয় ক্লাবের জন্যেও লাভজনক ব্যবসার উৎস। সেক্ষেত্রে আন্তোনিও গ্রিজম্যানের এমন পদক্ষেপ অবশ্যই তাৎপর্যপূর্ণ।

২৯ বছর বয়সী এ ফুটবলার ২০১৮ সালে ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী দলের অন্যতম প্রধান সদস্য। ২০১৭ সাল থেকে তিনি হুয়াওয়ের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ছিলেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *