February 25, 2024
জাতীয়লেটেস্ট

ঈদযাত্রায় ভোগান্তি চলছে : রিজভী

 

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

এবার ঈদযাত্রায় ভোগান্তি হবে না- মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এই ঘোষণাকে ‘জনগণের সাথে চরম রসিকতা’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ঈদ যাত্রার শুরুতেই যাত্রীদের ভোগান্তির চিত্র তুলে ধরতে শনিবার দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসে এই মন্তব্য করেন তিনি।

রিজভী বলেন, “জনাব ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য জনগণের সাথে চরম রসিকতা। সড়ক ব্যবস্থা এতটাই ভালো যে, ঢাকার অদূরে গাজীপুর যেতে সময় লাগে কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা। উত্তরাঞ্চলের অবস্থা আরও নাজুক।

“গতকাল (শুক্রবার) শুরুর দিনে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। সকালের ট্রেন বিকেলেও পাওয়া যায়নি। রেলমন্ত্রী এজন্য জাতির কাছে দুঃখও প্রকাশ করেছেন।” ঈদে লঞ্চগুলোতেও যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, “ঈদ যাত্রার শুরুতেই চরম দুর্ভোগে পড়েছে মানুষ। কথায় আছে, কয়লা ধুইলেও ময়লা যায় না। আওয়ামী লীগের নেতাদের কথা হচ্ছে তাই। মানুষের প্রত্যাশা ছিলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সুস্থ হয়ে ফিরে জনগণের পাশে দাঁড়াবেন। কিন্তু মানুষের দুর্ভোগ নিয়ে পরিহাস করার চিরচেনা স্বভাব তিনি ছাড়তে পারেননি।

রিজভী জানান, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের কমিটিগুলো কাউন্সিলের মাধ্যমে পুনর্গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, তারেক রহমান দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে সুপরিকল্পিত ও দূরদর্শী সিদ্ধান্তে দল পরিচালনা করছেন। তিনি বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনসমূহের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত কথা বলছেন। জেলা নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। তাদের যৌক্তিক পরামর্শ গ্রহণ করে বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় কমিটিগুলো গঠনতান্ত্রিক ও গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় পুনর্গঠন ও সাংগঠনিক কার্যক্রম তত্ত¡াবধান করছেন।

সারাদেশে কাউন্সিলের প্রস্তুতির খবর দিয়ে রিজভী বলেন, তারেক রহমানের সুনিপুণ নির্দেশনায় সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে এসেছে নতুন গতি। প্রাণাবেগে উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে নেতা-কর্মীরা। দলে সৃষ্টি হচ্ছে ইস্পাত কঠিন সুদৃঢ় ঐক্য।

সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য শাহিদা রফিক, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, জাহানারা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *