ইমামদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী খুতবায় সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বলার আহŸান

 

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

ধর্মের নামে যারা সন্ত্রাস করে, হত্যা করে তারা মানুষের ঘৃণা-অভিশাপ ছাড়া কিছু পায় না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে আগামী জুমার খুতবায় একযোগে সারা দেশের সব মসজিদে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কোরআন-হাদিসের আলোকে আলোচনা করতে ইমামদের প্রতি আহŸান জানান তিনি।

গতকাল বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন আন্তঃনগর ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি।

ধর্মের নামে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জানি না যারা এ ধরনের হত্যাকাণ্ড চালায় তারা কি পায়, কি লাভ তাদের হয়। মানুষের ঘৃণা ছাড়া, অভিশাপ ছাড়া আর কিছু তারা পায় না।’

তিনি বলেন, ইসলাম ধর্মের নাম নিয়ে যারা সন্ত্রাস চালায়, জঙ্গিবাদ চালায় তাদের কথাও বলবো। তারা এই পবিত্র ধর্মটাকে কুলষিত করছে, পবিত্র ধর্মের বদনাম করছে বিশ্বব্যাপী। তারা ইসলামের কোনো ভালো কাজ করছে না। তারা আসলে ইসলাম ধর্মটাকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইসলাম ধর্মের প্রচণ্ড ক্ষতি করে দিচ্ছে। যে ধর্ম সবচেয়ে মানবতার ধর্ম, যে ধর্ম সবচেয়ে শান্তির ধর্ম, সেই ধর্মের নামে তারা জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করে। এ ধরনের কাজে যারা জড়িত তাদের বিরত থাকতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেই কারণে আমি সব অভিভাবক, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, বাংলাদেশের জনগণ ও মসজিদের ইমাম, ধর্মীয় শিক্ষাগুরু অন্য ধর্মাবলম্বি যারা যার যার আওতায় শিশু-কিশোর-যুবক যারা আছে বা ছাত্র যারা আছে, শিক্ষক যারা আছে- যদি কারো মধ্যে এ ধরনের প্রবণতা দেখা দেয় সম্মিলিতভাবে তা প্রতিরোধ করার আহŸান জানাচ্ছি।

শুক্রবার জুমার সালাতের খুতবায় কোরআন-হাদিসের আলোকে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আলোচনা রাখতে ইমামদের আহŸান জানানোর পাশাপাশি স¤প্রতি নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কাসহ সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ও আহতদের জন্য দোয়া করার অনুরোধ করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, আগামী শুক্রবার আমি চাই প্রত্যেক মসজিদে জায়ান চৌধুরী, গত কয়েকদিন আগে নিউজিল্যান্ডে মসজিদের ভেতর ঢুকে আমাদের অনেক মুসলমানকে হত্যা করা হয়েছে। সেখানে থাকা আমাদের বাংলাদেশি, শ্রীলঙ্কার ঘটনানহ পর পর যে ঘটনাগুলো ঘটেছে প্রত্যেকটা মসজিদের যেন তাদের জন্য দোয়া কামনা করা হয়।

‘দোয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের যারা মসজিদে নামাজ পড়াবেন আমাদের ইমাম যারা আছেন- তাদের আমার অনুরোধ থাকবে আপনারা দয়া করে কথাগুলো বলবেন- এই জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস এটা যে মানবতার বিরুদ্ধে, এর সঙ্গে কোনো ধর্মের সংযোগ নেই। জঙ্গিবাদে যারা সম্পৃক্ত হয় তারা জঙ্গি, তাদের ধর্ম নেই, দেশ নেই, কোনো কিছু নেই। জঙ্গিবাদ যে ইসলাম ধর্মের জন্য ক্ষতিকারক, ইসলাম ও আমাদের নবী করিম (সা.) তিনি সব সময় শান্তির কথা বলে গেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আল­াহ রাব্বুল আলামিন বিচারের দায়িত্ব কখনো মানুষকে দেননি। সেই দায়িত্ব কিন্তু আল­াহর হাতে। আমরা যারা কোরআন শরিফ পড়ি সেখানে আমরা পাই- যে বিচার করবেন আল­াহ রাব্বুল আলামিন, তাহলে ধর্মের নামে মানুষ খুন করা কেন? যারা বিপথে চলে গেছে তারা যেন এর থেকে বিরত হয়। সারা বাংলাদেশে প্রত্যেক মসজিদে জুমায় যে খুতবা হয়, নিশ্চয়ই সেখানে আপনারা কথা বলে ইসলাম যে শান্তির ধর্ম, এ কথাটা ভালোভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরবেন। অনুষ্ঠানে গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমামসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান।

বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাজশাহী থেকে ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন, রাজশাহীর মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধনের পর ভিডিও কনফারেন্সে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় নির্মিত ইনস্টিটিউট ও স্থাপনার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.