ইন্দোনেশিয়ায় শক্তিশালী ভূমিকম্প

(বাসস ডেস্ক): ইন্দোনেশিয়ার পূর্বাঞ্চলে সোমবার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। রিখটার স্কেলে এর তীব্রতা ছিল ৭.৩। তবে এতে সুনামির কোন সতর্কতা জারি করা হয়নি এবং তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাপক ক্ষতি বা হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা একথা জানায়। খবর এএফপি’র।
সংস্থাটি জানায়, স্থানীয় সময় বেলা ১১ টা ৫৩ মিনিটে বন্দা সাগরে আমবন দ্বীপের ২০৮ কিলোমিটার দক্ষিণে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে।
প্রশান্ত মহাসাগরীয় সুনামি সতর্ককরণ কেন্দ্র জানায়, ভূমিকম্পটি অনেক গভীরে আগাত হানায় এতে সুনামির কোন হুমকি নেই।
ইন্দোনেশিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় পাপুয়া প্রদেশে রিখটার স্কেলে ৬.১ তীব্রতার একটি ভূমিকম্প আঘাত হানার কয়েক ঘণ্টা পর এ শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানলো।
মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, পাপুয়া প্রদেশের আবাপুরা শহরের প্রায় ২৪০ কিলোমিটার পশ্চিমে ভূপৃষ্ঠের মাত্র ২১ কিলোমিটার গভীরে ওই ভূমিকম্প আঘাত হানে।
খবরে বলা হয়, সেখানে ভূমিকম্পের পর তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি।
গত সপ্তাহেই ওই এলাকায় ভূপৃষ্ঠের স্বল্প গভীরে রিখটার স্কেলে ৬.৩ তীব্রতার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানে। এ ভূমিকম্পেও তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।
গত বছর সুলাওয়েসি দ্বীপের পালুতে একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প এবং এরফলে সৃষ্ট সুনামির আঘাতে ২ হাজার ২শ’ জনের বেশী মানুষের প্রাণহানি ঘটে এবং হাজারেও অধিক মানুষ নিখোঁজ হয়। রিখটার স্কেলে এর তীব্রতা ছিল ৭.৫।
এর আগে ২০০৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর আচেহ প্রদেশে রিখটার স্কেলে ৯.১ তীব্রতার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প এবং এরফলে সৃষ্ট ভয়াবহ সুনামির আঘাতে ১ লাখ ৭০ হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারায়।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.