ইকো কো-অপারেশনের জেলা পর্যায়ের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

খবর বিজ্ঞপ্তি

ইকো কো-অপারেশন কর্তৃক গতকাল সোমবার সিএসএস আভা সেন্টার, খুলনায় “অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মাধ্যমে প্রকল্পের কার্যক্রম অগ্রগামি ও টেকসই করার জন্য জেলা পর্যায়ের কর্মশালা” শীর্ষক এক কর্মশালা আয়োজন করা হয়। দি সল্ট সলিউশন মূলত একটি সম্মিলিত প্রকল্প যেখানে ইকো কোঅপারেশন নেতৃত্ব দানকারি সংন্থা, বাস্তবায়নে কোডেক, কারিগরি সহায়তায় সল্ট ফার্ম টেক্সেল, নেদারল্যান্ডস এবং অর্থায়নে ন্যাশনাল পোস্ট কোড লটারি, নেদারল্যান্ডস।

কর্মশালাটি প্রকল্পের প্রমাণিত অভিজ্ঞতা ও ফলাফল সমূহ বিনিময় করেছে আরো স¤প্রসারণের জন্য এবং এগুলোকে টেকসই করার জন্য সংশ্লিষ্ঠ সরকারি-বেসরকারি অংশীজনদের সহযোগীতা চেয়েছে। সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা এই কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষিবিদ কাজি আব্দুল মান্নান, অতিরক্তি পরিচালক, ডিএই, খুলনা অঞ্চল, বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষিবিদ মোঃ আব্দুল লতিফ, প্রাক্তন উপপরিচালক, ডিএই, খুলনা, কুষিবিদ সচিন্দ্রনাথ বিশ্বাস, মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা, মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইন্সটিটিউট, খুলনা এবং কৃষিবিদ অরুন কুমার গাঙ্গুলী, প্রকল্প সমন্বয়কারি, ইকো কোঅপারেশন; সভাপতির আসন গ্রহন করেন কৃষিবিদ পংকজ কান্তি মজুমদার, উপপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত), ডিএই, খুলনা।

কর্মশালাটি মূলত তিনটি অংশে পরিচালিত হয় যেখানে প্রথমে সরকারি কর্মকতাগণ এই প্রকল্পের অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন, দ্বিতীয় অংশে কৃষকের উৎপাদিত ফসল, প্রযুক্তি ও লবণাক্ততা পরীক্ষা সম্পর্কিত স্টল পরিদর্শন এবং পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে নির্ধারনের জন্য কৃষক ও সেবা দানকারি সংস্থা সমূহের মধ্যে একটি পারস্পরিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। কৃষকের স্টলে বিভিন্ন ধরনের সবজি যেমন গাজর, রেড বিট, বাঁধাকপি, ওলকপি এবং এসবের চাষাবাদ পদ্ধতি ও লবণাক্ততা পরীক্ষা ইত্যাদি প্রদর্শিত হয়।

স্টল পরিদর্শন শেষে কৃষক ও সেবা দানকারি সংস্থার (যেমন : সরকারি গবেষণা, স¤প্রসারণ ও সেচ প্রতিষ্ঠান, প্রাইভেট কোম্পানির মধ্যে বিভিন্ন বীজ কোম্পানি) প্রতিনিধিদের মধ্যে একটি অংশগ্রহণমূলক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় যেখানে কৃষকের ভবিষ্যৎ প্রয়োজন গুলোর প্রতি সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। অন্য অংগ্রহনকারিদের মধ্যে সাংবাদিক, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, কৃষি তথ্য সার্ভিস, কমিউনিটি রেডিও ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

অংশগ্রহণকারীরা উপলব্ধি করেন যে, বাংলাদেশের উপকূলীয় লবণাক্ত এলাকায় দি সল্ট সলিউশন প্রজেক্ট ক্ষুদ্র কৃষকদের জন্য যথেস্ট অবদান রাখতে সক্ষম হয়েছে। অতঃপর সরকারি কর্মকর্তা সহ উপস্থিত সকলে এধরনের একটি জলবায়ু উপযোগী প্রকল্প চলমান রাখার ব্যাপারে তাদের আশাবাদ ব্যাক্ত করেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.