April 10, 2024
জাতীয়

আবরারের মৃত্যু: সুপ্রভাতের কন্ডাকটর ও হেলপার রিমান্ডে

 

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

ঢাকার প্রগতি সরণিতে সুপ্রভাত পরিবহনের যে বাসের চাপায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিউপি) ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরীর মৃত্যু হয়েছে, তার ‘কন্ডাকটর’ ইয়াছিন আরাফাত ও চালকের সহকারী ইব্র‘াহিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠিয়েছে আদালত।

ঢাকার মহানগর হাকিম সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী বুধবার এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মঙ্গলবার রাতে চাঁদপুরের শাহরাস্তি থেকে ইয়াসিন ও বুধবার সকালে ঢাকার মধ্যবাড্ডায় অভিযান চালিয়ে ইব্র‘াহীমকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

পরে এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ১৯ মার্চ সকালে সদরঘাট থেকে রওনা হওয়ার পর ওই বাসটি শাহজাদপুর বাঁশতলা এলাকায় এক কলেজছাত্রীকে চাপা দেয়। বাসের মূল চালক সিরাজুল ইসলামকে ধরে তখন পুলিশে দেন যাত্রীরা।

এরপর মালিকের নির্দেশে কন্ডাকটর’ ইয়াছিন ওই গাড়ি চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় প্রগতি সরণির বসুন্ধরা গেইটে ফের দুর্ঘটনা ঘটান। সেখানেই বাসটির চাপায় আবরারের মৃত্যু হয়।

ওই ঘটনার পর আবরারের বাবা আরিফ আহমেদ চৌধুরী সুপ্রভাত পরিবহনের মালিক, চালক, সহকারীদের আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় সিরাজুলকে সাত দিনের রিমান্ডে নিয়ে ইতোমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

বুধবার ‘কন্ডাকটর’ ইয়াছিন ও ‘হেলপার’ ইব্র‘াহিমকে হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী শরীফুল ইসলাম।

শুনানি শেষে বিচারক সাদবীর ইয়াসির আহসান চৌধুরী সাত দিন রিমান্ডে নিয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন বলে আদালত পুলিশের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা এসআই শেখ রাকিবুর রহমান জানান।

তিনি বলেন, এ মামলায় দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারায় ‘অপরাধজনক প্রাণনাশের’ অভিযোগ প্রমাণিত হলে আসামিদের সর্ব্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে।এটি জামিন অযোগ্য ধারা।

 

 

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *