আটক ভারতীয় বৈমানিককে ‘শান্তির জন্য’ ছেড়ে দিচ্ছে পাকিস্তান

পাক-ভারত চলমান উত্তেজনা প্রশমনে আটক ভারতীয় বিমানবাহিনীর উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে ফিরিয়ে দিচ্ছে পাকিস্তান।

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বৃহস্পতিবার এক ঘোষণায় বলেছেন, শান্তির নিদর্শন হিসাবে শুক্রবারই অভিনন্দনকে মুক্তি দেবে পাকিস্তান।

পার্লামেন্টে এক যৌথ অধিবেশনের ভাষণে তিনি বলেন, “আমাদের শান্তি প্রতিষ্ঠার আকাঙ্খা থেকে আমি ঘোষণা করছি যে, আগামীকাল খোলাখুলি আলোচনার প্রথম ধাপ হিসাবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর কর্মকর্তাকে আমাদের হেফাজত থেকে পাকিস্তান মুক্তি দেবে।”

এর আগে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি পাকিস্তানের জিও টিভিকে বলেছিলেন, আটক ভারতীয় বৈমানিক অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দিলে যদি সংঘাত এড়ানো যায় তাহলে পাকিস্তান তাকে ফিরিয়ে দিতে ইচ্ছুক। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কথা বলতে চান বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

বুধবার পাকিস্তান ভারতীয় বিমান বাহিনীর একটি বিমান ভূপাতিত করার দাবি করার পর বিমানটির উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আটক করে। অভিনন্দনের একটি ভিডিয়োও প্রকাশ করে পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর ‘ইন্টার সার্ভিসেস পাবলিক রিলেশন্স’ (আইএসপিআর)।

এ ভিডিও প্রকাশের পর ভারত সরকার তাদের একজন আহত বৈমানিক পাকিস্তানের হাতে আটক হয়েছে উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে তাকে দ্রুত এবং নিরাপদে ফিরিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিল। এরপরই পাকিস্তানের তাদের প্রতিক্রিয়া জানায়।

এর মধ্যেই অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দিয়ে সমস্যার সমাধান করা গেলে সেপথে যেতে আপত্তি নেই বলে জানাল পাকিস্তান।  তবে মিগ-২১ এর আটক এ বৈমানিককে ফেরত পেতে ভারত কোনো ধরনের আপোস করবে না। নিঃশর্তেই ভারত অভিনন্দনকে ফেরত চায় বলে কয়েকজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে জানিয়েছে এনডিটিভি।

“আমরা তাকে শিগগির ফেরত চাই। পাকিস্তান হয়ত ভাবছে তারা আলোচনার জন্য একটি কার্ড পেল, তারা তা পায়নি,” নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা। পাইলটকে ফিরিয়ে আনতে ভারত সবকিছু করবে বলেও জানান তিনি।

বুধবার সকালে কাশ্মীরের আকাশে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিমান যুদ্ধের পর পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর এলাকা থেকে অভিনন্দনকে আটক করে পাকিস্তানি সেনারা।

ভারতীয় একটি মিগ ২১ জঙ্গিবিমান বিধ্বস্ত হওয়ার সময় এর পাইলট অভিনন্দন প্যারাশুটে করে কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ রেখার অপরপাশে পাকিস্তান অংশে অবতরণ করেন। তারপর থেকেই পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হেফাজতে আছেন তিনি

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.