June 19, 2024
জাতীয়

অস্ট্রেলিয়া ভ্রমণেও সতর্কতা জারি

 

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

নিউ জিল্যান্ডে হামলায় অর্ধশত মানুষের প্রাণহানির প্রেক্ষাপটে অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশিদের জন্য সতর্কতা জারি করেছে সরকার। অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরতদের সার্বক্ষণিক, বিশেষত জনসমাগমস্থলে সজাগ থাকারও আহŸান জানানো হয়েছে। সংবাদ মাধ্যমে নজর রাখার পাশাপাশি অন্যান্য স্থানীয় সূত্রের মাধ্যমে নিরাপত্তা পরিস্থিতি ও ঝুঁকি সম্পর্কেও অবগত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত শুক্রবার নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে গুলি চালিয়ে ৫০ জনকে হত্যায় অভিযুক্ত ব্রেন্টন ট্যারান্ট অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। ওই হামলায় নিহতদের পাঁচজন বাংলাদেশি, আহতদের মধ্যেও তিনজন প্রবাসী রয়েছেন।

হামলাকারী ট্যারান্টকে ‘শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদী’ বলা হচ্ছে। হামলার আগে তিনি ৭৪ পৃষ্ঠার কথিত মেনিফেস্টো প্রচার করেন, যাতে মুসলিম ও অভিবাসীবিরোধী স্লোগান, কবিতা ও বক্তব্য ছিল। সেখানে নিজেকে ‘বর্ণবাদী’ হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন তিনি।

ভয়াবহ ওই হামলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার একজন সিনেটর বিবৃতি পাঠিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের জন্য মুসলিমদেরই দায়ী করেন। ওই হামলা অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ডে ‘মুসলমান অভিবাসীদের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে বাড়তে থাকা আতঙ্কের’ কথা বলছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ার একজন আইনপ্রণেতার এ রকম উগ্রপন্থি অবস্থান দেশটিতে বর্ণবাদী মনোভাব উসকে দেওয়ার আতঙ্ক ছড়িয়েছে বলে মনে করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এই প্রেক্ষাপটে অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশি নাগরিক এবং অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণকারী বাংলাদেশি নাগরিকদের সার্বক্ষণিক, বিশেষত জনসমাগমস্থলে, সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। মিডিয়া ও স্থানীয় অন্যান্য সূত্র থেকে নিরাপত্তা ঝুঁকি সম্পর্কে অবগত থাকতে হবে।

ক্যানবেরায় বাংলাদেশের হাই কমিশন নাগরিকদের সেবা দিতে প্রস্তুত রয়েছে। যে কোনো প্রয়োজনে +৬১৪২৪৪৭২৫৪৪, +৬১৪২৪৪৭২৫৪৪, +৬১৪৫০১৭৩০৩৫ নম্বরে ফোন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ২০১৬ সালে গুলশানের হলি আর্টিজান ক্যাফেতে সন্ত্রাসী হামলার পর অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে নাগরিকদের ভ্রমণ সতর্কতা জারির পাশাপাশি ঢাকা থেকে সরাসরি কার্গো ফ্লাইট বন্ধ করেছিল। সে সময় নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশে ক্রিকেট টিমের সফরও বাতিল করেছিল তারা।

 

 

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *