অস্ট্রেলিয়ার ৩২ বছরের দুর্গ গুঁড়িয়ে রোমাঞ্চকর জয় ভারতের

জস হ্যাজলউডের বলটা লং অফের দিকে ঠেলে দিয়েই প্রাণপন দৌড় শুরু করলেন রিশাভ পান্ত। ভারতের জয়ের জন্য দরকার তখন ৩ রান। দৌড়ে হলেও জয়টা নিশ্চিত করা চাই। শেষতক ওই বলটা গড়াতে গড়াতে পার হলো বাউন্ডারি।

২৩ বছর বয়সী পান্তের ব্যাটের ছোঁয়াতেই গ্যাবায় অস্ট্রেলিয়ার ৩২ বছরের দুর্গে হানা দিল ভারত। সিরিজ নির্ধারণী চতুর্থ ও শেষ টেস্টটিতে শেষ মুহূর্তে এসে ৩ উইকেটের রোমাঞ্চকর এক জয় পেয়েছে আজিঙ্কা রাহানের দল। তাতে ২-১ ব্যবধানে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফি নিজেদের করে নিয়েছে তারা।

ভারতের উত্থান-পতনে সাজানো এক সিরিজে শেষটাও হলো রোমাঞ্চ আর উত্তেজনায়। গ্যাবায় চতুর্থ ইনিংসে রাহানের দলের সামনে জয়ের লক্ষ্য ছিল ৩২৮ রানের। চতুর্থ দিন শেষে বিনা উইকেটে ৪ রান তুললেও গ্যাবার কঠিন উইকেটে ভারত পঞ্চম দিনে কতটা টিকতে পারবে, সংশয় ছিল।

তৃতীয় টেস্টের মতো শেষদিন পুরোটা সময় ব্যাটিং করে কাটিয়ে দিতে পারলেও সেটা বড় এক বীরত্বগাঁথা হতো ভারতের। কিন্তু এবার আর অস্ট্রেলিয়াকে আটকে রাখা নয়, নিজেদের ওপরে রাখার মিশন নিয়েই যেন লড়ছিল সফরকারিরা। গ্যাবার উইকেটে চতুর্থ ইনিংসে ৯৭ ওভার কাটিয়ে অবিশ্বাস্য এক জয় তুলে নিয়ে সেই মিশন পূর্ণ করেই ছাড়ল আজিঙ্কা রাহানের দল।

কঠিন লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারতকে শুরুর সাহসটা দিয়েছেন শুভমান গিল। তার ৯১ রানের ইনিংসেই শেষদিনে জয়ের কথাও ভাবতে পেরেছিল অতিথিরা। ওই ভিতের ওপর দাঁড়িয়ে চেতেশ্বর পূজারা আর রিশাভ পান্ত জয়ের স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দিয়েছেন।

পূজারা ৫৬ রানে ফিরলেও পান্ত হাল ছাড়েননি। দলকে একদম জয়ের বন্দর পর্যন্ত নিয়ে গেছেন। ১৩৮ বলে ৯ বাউন্ডারি আর এক ছক্কায় ৮৯ রানে অপরাজিত থাকেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। এছাড়া শেষ দিকে গুরুত্বপূর্ণ ২২ রান করেন ওয়াশিংটন সুন্দর।

ভারতের এই জয় অনেক দিন থেকেই বিশেষ অর্থবহ। গত ৩২ বছরের মধ্যে গ্যাবার দুর্গে হার দেখেনি অস্ট্রেলিয়া। সর্বশেষ তারা নিজেদের এই পয়া ভেন্যুতে হেরেছিল সেই ১৯৮৮ সালে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।

এরপর অস্ট্রেলিয়া এই ভেন্যুতে ৩১টি ম্যাচ খেলে জিতেছে ২৪টিতেই। বাকি ৭টিতে করেছে ড্র। ভারতও এখানে এর আগে ৬টি টেস্ট খেলেছে। হেরেছে ৫টি, একটি করেছে ড্র। লাকি সেভেনে এসে অবশেষে জয়ের মুখ দেখল টিম ইন্ডিয়া।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস : ৩৬৯/১০ (মার্নাস লাবুশানে ১০৮, টিম পেইন ৫০; টি নটরাজ ৩/৭৮, ওয়াশিংটন সুন্দর ৩/৮৯, শার্দুল ঠাকুর ৩/৯৪)
ভারত প্রথম ইনিংস : ৩৩৬/১০ (শার্দুল ঠাকুর ৬৭, ওয়াশিংটন সুন্দর ৬২; জশ হ্যাজলেউড ৫/৫৭)
অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় ইনিংস : ২৯৪/১০ (স্টিভেন স্মিথ ৫৫, ডেভিড ওয়ার্নার ৪৮; মোহাম্মদ সিরাজ ৫/৭৩, শার্দুল ঠাকুর ৪/৬১)।
ভারত দ্বিতীয় ইনিংস : ৩২৯/৭ (শুভমান গিল ৯১, চেতেশ্বর পূজারা ৫৫, রিশাভ পান্ত ৮৯*; প্যাট কামিন্স ৪/৫৫)

ফল : ভারত ৩ উইকেটে জয়ী।
সিরিজ : চার টেস্টের সিরিজে ভারত ২-১ ব্যবধানে জয়ী।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *