অভয়নগরে অস্ত্র ঠেকিয়ে দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণ, বাড়িওয়ালা আটক

বিশেষ প্রতিনিধি, অভয়নগর
যশোরের অভয়নগর উপজেলার শিল্প ও বাণিজ্য শহর নওয়াপাড়ায় ধারালো অস্ত্র ঠেকিয়ে ৩০ বছর বয়সী দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। ধর্ষিতা নারী বাদি হয়ে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার সাথে জড়িত বিটু আহম্মেদ (৪০) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে থানা পুলিশ। আটক বিটু আহম্মেদ নওয়াপাড়া মশরহাটি গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে নওয়াপাড়া মশরহাটি গ্রামে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। সকালে অভয়নগর থানায় মামলা দায়ের পর ধর্ষক বিটু আহম্মেদকে আটক করেছে পুলিশ।
মামলা সূত্র ও ধর্ষিতা নারী জানান, কয়েক বছর পূর্বে তার স্বামী দুই সন্তান ও তাকে ফেলে আরেকটি বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায়। এরপর সন্তানদের নিয়ে তিনি বিটু আহম্মেদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। কিছুদিন ধরে বাড়ির মালিক বিটু তাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করতে শুরু করেন। ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর বাড়ির মালিক বিটু ওই নারীর ঘরে ঢোকার উদ্দেশ্যে দরজা খুলতে বলেন। দরজা খোলামাত্র বিটু তার হাতে থাকা মাংস কাটার কাজে ব্যবহৃত ধারালো চাপট দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। বিষয়টি জানাজানি করলে দুই কন্যাসহ তাকে হত্যা করবে বলে হুমকিও দেন। সকাল হওয়ার পর তিনি কৌশলে পালিয়ে অভয়নগর থানায় আসেন এবং বিটু আহম্মেদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করে মামলা দায়ের করেন। তিনি ধর্ষক বিটুর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।
তবে বিটু আহম্মেদ তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বাড়ির ভাড়াটিয়া ওই নারী আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। এ ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই। আমার বিরুদ্ধে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল জানান, ধর্ষণের অভিযোগে বিটু আহম্মেদ নামে এক ব্যক্তিকে মশরহাটি গ্রাম থেকে বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধর্ষিতা নারী বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-১২। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ওই নারীকে যশোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আটক বিটুকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

‌দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন/ জে এফ জয়

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *