February 25, 2024
খেলাধুলা

অনুর্ধ-১৯ এশিয়া কাপের ফাইনালে আজ ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক

এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) আয়োজিত অনুর্ধ-১৯ এশিয়া কাপ ক্রিকেটের ফাইনালে কাল শক্তিশালী ভারতের মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ। আজ শনিবার শ্রীলংকার আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।

ভারতীয়দের বিপক্ষে আসন্ন ম্যাচটি বাংলাদেশী যুবাদের জন্য বেশ কঠিন হবে। কেননা ইতোপূর্বে বারবারই ভারতের বিপক্ষে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশের যুবারা।

সর্বশেষ টুর্নামেন্টের সেমি-ফাইনালে ভারতের কাছে পরাজিত হয়েছিল বাংলাদেশ। স¤প্রতি ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের ফাইনালেও এই ভারতের কাছে হার মানতে বাধ্য হয়েছে যুব টাইগাররা। এমনকি যুবকদের বড় কোন টুর্নামেন্টেই নকআউট পর্বে ভারতকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ।

টাইগার অধিনায়ক আকবর আলী অবশ্য বলেছেন, ভারতের বিপক্ষে পরাজয়ের ধারা থেকে বেরিয়ে আসতে চায় তার দল। যুব এশিয়া কাপের এই ফাইনালে এশীয় জায়ান্টদের মোকাবেলায় তারা বেশ ভাল প্রস্তুতি নিয়েছেন বলেও জানান।

আকবর আলী বলেন,‘ আসন্ন ম্যাচকে সামনে রেখে আমরা মানসিকভাবে সঠিক পথেই রয়েছি। ভাল খেলার ব্যাপারে আশাবাদী। গ্র“প পর্বে আমরা ভাল খেলেছি। ফাইনালেও নির্ভার হয়ে খেলতে চাই।’

গ্র“প পর্বে টানা তিন ম্যাচে জয় নিয়ে টুর্নামেন্টের সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। তবে আফগানিস্তানের বিপক্ষে নির্ধারিত সেমি-ফাইনালের ম্যাচটি বৃস্টির জন্য পরিত্যক্ত হওয়ায় ‘বি’ গ্র“পের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ফাইনালে খেলার সুযোগ পায় বাংলাদেশী যুবারা।

এদিকে অবিরাম বর্ষণের কারণে স্বাগতিক শ্রীলংকার বিপক্ষে ভারতের অপর সেমিফাইনালটিও পরিত্যক্ত হয়েছে। ফলে ‘এ’ গ্র“পের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করে ভারত।

আকবর আলী বলেন, ‘আমাদের এখন দরকার দলগত ফারফরমেন্স। তাহলেই কেবল ভারতকে হারানো সম্ভব হবে। নিজ দলের পেস বোলার এবং ব্যাটসম্যানদের বড় সংগ্রহ করার সামর্থ্য নিয়েও তার আস্থা রয়েছে। তবে কলোম্বোর আবহাওয়া এখনো খুব একটা ভাল অবস্থায় নেই। তাই ফাইনাল ম্যাচটিও বৈরী আবহাওয়ার কারণে বাধাগ্রস্ত হবে বলে আশংকা করা হচ্ছে।

এসিসির ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, অনুর্ধ-১৯ এশিয়া কাপে দারুন রেকর্ডের মালিক ভারত। তারা টুর্নামেন্টের সপ্তম শিরোপা জয়ের অপেক্ষায় রয়েছে।

১৯৮৯ সালে অনুর্ধ-১৯ এশিয়া কাপ চালু হবার পর থেকে ভারত শুধুমাত্র একটি আসরের ফাইনালে খেলতে পারেনি। শুধু তাই নয়, কোন ফাইনালেই তারা পরাজিত হয়নি। ২০১২ সালের একটি ফাইনাল টাই হওয়ায় যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয় দুই ফাইনালিস্ট ভারত ও পাকিস্তানকে।

সৌরভ গাঙ্গুলি, মারভান আতাপাত্তু, দিনেশ কার্তিক, এঞ্জেলো ম্যাথুজ ও বাবর আজমের মত ক্রিকেট তারকারা বেরিয়ে এসেছেন অনুর্ধ-১৯ এশিয়া কাপের অতীত টুর্নামেন্ট থেকে। তরুণ তারকাদের উঠে আসার সেই ধারা এখনো অব্যহত রয়েছে।

আসন্ন ফাইনালে বাংলাদেশ বেশী নির্ভর করবে ওপেনার মাহমুদুল জয়ের উপর। ফাইনালেও তিনি বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এমনকি দলের প্রয়োজনে দ্রুত রান সংগ্রহেও পিছপা হননা তিনি।

গ্র“প পর্বের শেষ ম্যাচে শ্রীলংকার লেগ স্পিনার কাবিন্দু নাদেশানের বলকে দারুন মোকাবেলা করেছিলেন তিনি। ৪৭তম ওভারে গিয়ে তিনি হাকিয়েছেন দুটি ছয় ও তিনটি চার। যার সুবাদে বাংলাদেশ লংকানদের হারাতে সক্ষম হয়।

অধিনায়ক আকবর আলী নিজেও দারুন ব্যাট করেন। তবে তার ব্যাটিংয়ের কোন স্থায়ী পজিশন নেই। বর্তমানে ষষ্ঠ অবস্থানে ব্যাট করেন তিনি। যেটি তার জন্য অনেক নীচে।

ভারতীয় দলের রয়েছে কিছু সংখ্যক মেধাবী ফাস্ট বোলার। যে কারণে একটি আকর্ষণীয় ম্যাচের জন্য লংকান রাজধানী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে বলে জানিয়েছে এসিসি।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *