লক্ষ্ণৌকে বিধ্বস্ত করে প্লে-অফে গুজরাট

জিতলেই প্লে-অফ নিশ্চিত; এমন গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল শীর্ষে থাকা দুই নবীন দল গুজরাট টাইটান্স ও লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টস। এমন ম্যাচে বোলারদের সাফল্যে ভর করে বড় জয়ের পাশাপাশি আসরের প্রথম দল হিসেবে প্লে-অফে পা রাখলো গুজরাট।

চলতি আইপিএলের ৫৭তম ম্যাচে মঙ্গলবার পুনে স্টেডিয়ামে ৬২ রানের জয় পেয়েছে গুজরাট। শুরুতে ব্যাট করে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রানের পুঁজি পায় গুজরাট। কিন্তু জবাবে মাত্র ৮২ রানেই গুঁটিয়ে যায় লক্ষ্ণৌর ইনিংস।

আজকের ম্যাচের আগে দুই দলই ছিল দুর্দান্ত ফর্মে। পয়েন্ট টেবিলের দুই শীর্ষ স্থানও তাদের দখলে। কিন্তু এবারের জয়ে শীর্ষস্থান আরও পাকাপোক্ত করে প্লে-অফ নিশ্চিত করল গুজরাট। যদিও শুরুতে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৪ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে বসেছিল তারা। পরে দলকে ৫৩ রানে রেখে বিদায় নেন অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়াও (১১)। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে লড়াই চালিয়ে যান শুভমান গিল। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা এই ব্যাটারের ব্যাট থেকে আসে ৪৯ বলে ৭ চারে সাজানো ৬৩ রানের ইনিংস। এছাড়া ডেভিড মিলার ২৬ এবং রাহুল তেওয়াতিয়া ২২* রান করেন।

বল হাতে লক্ষ্ণৌয়ের মহসিন খান ১ উইকেট নিলেও ৪ ওভারে খরচ করেন ১৮ রান। এছারা আভেশ খান ২টি এবং জেসন হোল্ডার ১টি উইকেট নেন।

জবাব দিতে নেমে শুরু থেকেই খাবি খেতে থাকে লক্ষ্ণৌ। রশিদ খানদের দাপুটে বোলিংয়ে সামনে অসহায় আত্মসমর্পণ করেন কুইন্টন ডি কক-লোকেশ রাহুলরা। সবমিলিয়ে দুই অংকের দেখাই পান দলটির মাত্র ৩ ব্যাটার। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ২৭ রান আসে দীপক হুডার ব্যাট থেকে। এই ইনিংস খেলতেও তিনি ২৬ বল খেলেন। এছাড়া ডি কক ১১ এবং শেষদিকে আভেশ খান ১২ রান করেন। বাকিরা ছিলেন আসা-যাওয়ার মিছিলে ব্যস্ত।

বল হাতে একাই ৪ উইকেট নেন গুজরাটের আফগান স্পিনার রশিদ খান। এছাড়া যশ দয়াল ও সাই কিশোর ২টি করে এবং মোহাম্মদ শামি ৩ ওভারে মাত্র ৫ রান খরচে নেন ১ উইকেট।

১২ ম্যাচে ৯ জয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে গুজরাট। সমান ম্যাচে ২ পয়েন্ট কম নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে লক্ষ্ণৌ।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.