April 25, 2024
আঞ্চলিকলেটেস্টশিক্ষাশীর্ষ সংবাদ

খুবি শিক্ষকের চুরি হওয়া প্রায় ৯ লক্ষ টাকা উদ্ধার, চোর গ্রেপ্তার

দ. প্রতিবেদক
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরেস্ট্রি এন্ড উড টেকনোলজি ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড. এস. এম. ফিরোজের বিশ্ববিদ্যালয়স্থ নিজস্ব কক্ষ থেকে চুরি হওয়া ৮ লাখ ৯৫ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে হরিণটানা থানা পুলিশ। এ ঘটনায় আন্তঃজেলা চোর চক্রের সক্রিয় সদস্য মোঃ টিটন খান (৩৫) কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার টিটন খান দিঘলিয়া থানাধীন পানিগাতী পশ্চিমপাড়া এলাকার মোঃ হারুন খানের ছেলে।
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর এবং মিডিয়া) মিয়া মোহাম্মদ আশিস বিন্ হাছান জানান, অধ্যাপক ড. এস এম ফিরোজ গত ১২ মার্চ অগ্রণী ব্যাংক, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা হতে দুপুর ১২.৩০ মিনিটে পাঁচটি এ্যাকাউন্ট হতে সর্বমোট ৮ লাখ ৯৫ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। পরবর্তীতে তিনি দুপুর ০১.১০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২নং একাডেমি ভবনে রুম নং-২২৬০ তে তার নিজস্ব রুমে গিয়ে উত্তোলনকৃত টাকা ব্যাগসহ চেয়ারের উপরে রেখে রুমের বাহিরে করিডরে ওজু করতে যান। অতঃপর আতঙ্কিত হয়ে দ্রুত ব্যাগের কাছে এসে দেখেন ব্যাগের চেন খোলা এবং টাকা গায়েব।
তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়- অজ্ঞাত একজন ব্যক্তি কিছু একটা নিয়ে দৌড়ে মেইন গেট দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যাচ্ছে। কোন কূল কিনারা না পেয়ে উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে হরিণটানা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। যার নং নং-১০, তারিখ-১৩/০৩/২০২৪ খ্রি.। এ ঘটনায় হরিণটানা থানা পুলিশ একটি চৌকস টিম গঠন করে ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে সর্বাত্মক চেষ্টা করতে থাকে। পরবর্তীতে পুলিশ সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে পর্যালোচনা করে এবং গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অভ্যাসগত ও পেশাদার চোর চক্রের তথ্য সংগ্রহ করে সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজের সাথে একজন ব্যক্তির মিল পেয়ে দিঘলিয়া থানাধীন পানিগাতী গ্রামে স্থানীয় থানা পুলিশের সহায়তায় অভিযান বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে টিটন খান নামের ওই চোরকে চুরি হওয়া টাকা উদ্ধারপূর্বক গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী উক্ত চুরির ঘটনার সাথে জড়িত ছিলো বলে স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে যথানিয়মে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, উক্ত গ্রেফতারকৃত আন্তঃজেলা চোর চক্রের সক্রিয় সদস্যর বিরুদ্ধে খুলনা ও বাগেরহাটের বিভিন্ন থানায় ৪টি মামলার তথ্য পাওয়া গেছে।

দক্ষিণাঞ্চল প্রতিদিন/ জে এফ জয়

শেয়ার করুন: