হংকংয়ে মুখোশ নিষিদ্ধ, ক্ষুব্ধ বিক্ষোভকারীরা

দক্ষিণাঞ্চল ডেস্ক

চার মাসের টানা সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমাতে ঔপনিবেশিক যুগের জরুরি

আইনের আওতায় বিক্ষোভ-সমাবেশে মুখোশ পরা নিষিদ্ধ করেছেন হংকংয়ের

নেতা ক্যারি লাম।

গতকাল শুক্রবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এ নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে লাম

জানিয়েছেন, শনিবার থেকেই তা কার্যকর হবে। পরিস্থিতি যাতে খারাপ

থেকে আরো খারাপের দিকে না যায় সেজন্যই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে

বলে জানান তিনি।

লামের এ ঘোষণায় ক্ষুব্ধ হয়েছে বিক্ষোভকারীরা। তাৎক্ষণিক প্রতিকিয়ায়

নতুন এ আইন অমান্য করার দৃঢ়সংকল্প নিয়ে তারা রাস্তায় নেমে এসে

প্রতিবাদ করেছে। মুখোশ পরা বিক্ষোভকারীরা অবশ্য এর আগে সরকারের

মুখোশ নিষিদ্ধের তোড়জোড় শুরুর সময়ই এর বিরোধিতা করতে অন্যান্য

আন্দোলনকর্মীদের মুখোশ পরার আহŸান জানিয়েছিল।

 

পর্যবেক্ষকরা বলছেন, নতুন আইনটি খুবই বিতর্কিত এবং এটি কার্যকর

করাও কঠিন হবে। তাছাড়া, হংকংয়ে বিক্ষোভের বিরুদ্ধে এটিই সম্ভবত

প্রথম এমন কড়া পদক্ষেপ বলে সতর্ক করেছেন সমালোচকরাও। সমালোচকদের

আশঙ্কা, এতে হংকংয়ে বিচার বিভাগীয় স্বাধীনতা ক্ষুন্ন হবে এবং

ভিন্নমতাবলম্বীরা বিপদগ্রস্ত হবে।

গণতন্ত্রপন্থি এক আইনজীবী বলেছেন, এটি কেবল মাত্র শুরু। সামনে আইনের

নামে আরো অনেক কঠোর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আন্দোলনকারীদের কোণঠাসা

করা হতে পারে বলে আমি উদ্বিগ্ন। কেবল বিক্ষোভকারীরাই নয় জাতিসংঘ

মানবাধিকার পরিষদসহ বিভিন্ন মহল থেকেও এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোমিনিক র‌্যাব বলেছেন, হংকং পরিস্থিতি কেবলমাত্র

রাজনৈতিক সংলাপের মাধ্যমেই সমাধান করা যেতে পারে। নতুন আইনের

আওতায় মুখে ব্যবহার করা যায় এমন সব আবরণই নিষিদ্ধ থাকবে। এমনকি

মুখে পেইন্টও লাগানো যাবে না। হংকংয়ে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ছোড়া

কাঁদানে গ্যাস থেকে বাঁচতে এবং তাদের যেন শনাক্ত করা না যায়, এজন্য

প্রায়ই মুখোশ পরে।

চীনের মূলভূখণ্ডে বন্দি প্রত্যর্পণ নিয়ে একটি প্রস্তাবিত বিল বাতিলের

দাবিতে গত জুন মাসে হংকংয়ে আন্দোলন শুরু হয়েছিল। টানা আন্দোলনের

মুখে ওই বিল প্রথমে ‘মৃত’ এবং পরে বাতিল ঘোষণা করা হলেও আন্দোলন

থামেনি। বরং গণতন্ত্রপন্থি আন্দোলনকারীরা এখন হংকংয়ের চীনপন্থি সরকারের

পদত্যাগ দাবি করছে।

প্রায় চার মাস ধরে চলা আন্দোলনের সবচেয়ে সংঘাতময় দিনটি ছিল চীনে

কমিউনিস্ট শাসনের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর দিন। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের

ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার সময় ১৮ বছরের এক তরুণ একটি ধাতব লাঠি হাতে এক

পুলিশের দিকে এগিয়ে গেলে তাকে থামাকে পুলিশ সরাসরি তার বুকে গুলি

করে।

হংকং জুড়ে এদিন ২৬৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়, যাদের ১৭৮ জন পুরুষ ও ৯১

জন নারী। বিক্ষোভ শুরুর পর এর আগে একদিনে এত বিক্ষোভকারী গ্রেফতার

হয়নি। গ্রেফতার ব্যক্তিদের বয়স ১২ থেকে শুরু করে ৭১ পর্যন্ত।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *